MPO নীতিমালা সংশোধন কমিটির সমীপে

প্রকাশিত: ৩:৪৯ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২, ২০২০

MPO নীতিমালা ২০১৮ সংশোধনের কাজ চলছে। শিক্ষাব্যবস্থাপনা উন্নয়নের জন্য ১৯৯৫ সালের পর থেকে MPO নীতিমালায় অনেক পরিবর্তন আসলেও এর কিছু ধারা পরিবর্তনের জন্য শিক্ষকসমাজ দীর্ঘ দিন ধরে আন্দোলন করে আসছেন, কিন্তু আজ পর্যন্ত পরিবর্তন করা হয় নাই। যেমন কলেজ পর্যায়ে প্রভাষকদের পদোন্নতিতে ৫ ঃ ২ অনুপাত প্রথা যা কালো প্রথা নামে পরিচিত। বিষয়টিকে একটি উপমার মাধ্যমে আলোচনা করা যাক। মনেকরি একটি প্রতিষ্ঠানে ২০ জন প্রভাষক রয়েছেন। জনাব করিম উক্ত প্রতিষ্ঠানের ২০তম শিক্ষক। তার শিক্ষাজীবনে চারটি ১ম বিভাগ/ শ্রেণি রয়েছে। তিনি আরও উচ্চতর ডিগ্রি এম.ফিল এবং পিএইচ.ডি. ডিগ্রি অর্জন করেছেন । তার আবার ছয়টি গবেষণা আর্টিকেল রয়েছে। তিনি খুব ভালো পাঠদান করেন এবং শিক্ষার্থী মহলে তিনি বেশ জনপ্রিয়। কিন্তু MPO নীতিমালা অনুযায়ী ৫ ঃ ২ প্রথার কারণে তিনি কোন দিনই সহকারী অধ্যাপক হতে পারবেননা। ফলে তিনি উপাধ্যক্ষ পদে আবেদনের জন্য অযোগ্য হয়ে গেলেন, আর অধ্যক্ষ পদ তার জন্য অধরাই থেকে গেল। অতএব জনাব করিমকে দীর্ঘ চাকুরী জীবন শেষে প্রভাষক হিসেবেই অবসর গ্রহণ করতে হবে । তাহলে জনাব করিম কেন বেসরকারি শিক্ষার্থীদের পাঠদানের দায়িত্ব নিবেন ? বাধ্য হয়েই তাকে অন্য পেশা বেচে নিতে হবে। কিছু অপরিপক্ক এবং অদুরদর্শী লোক
কতৃক স ৃষ্ট MPO নীতিমালার কারণেই আমরা মেধাবী শিক্ষকদের শিক্ষকতা পেশায় ধরে রাখতে পারছিনা। অথচ দেশের প্রায় ৯৭% শিক্ষার্থী বেসরকারি ব্যবস্থায় শিক্ষা গ্রহণ করে থাকে। একে অবহেলা করার কোন সুযোগ নাই। তাই মেধাবীদের শিক্ষকতা পেশায় আকৃষ্ট করতে MPO নীতিমালা থেকে ৫ঃ২ বাতিল করে পদোন্নতির ক্ষেত্রে এবং উপাধ্যক্ষ ও অধ্যক্ষ নিয়োগের ক্ষেত্রে ভালো ফলাফল এর অধিকারী, ভালো পাঠদানকারী, উচ্চতর ডিগ্রি যেমন এম. ফিল /পিএএইচ. ডি. ডিগ্রিধারী, গবেষণা আর্টিকেলধারী শিক্ষকদের অগ্রাধিকার দিয়ে এবং বাতিলকৃত সহযোগী অধ্যাপক পদ পুনরায় সংযোজন করে ও অধ্যাপক পদ সৃষ্টি করে MPO নীতিমালা প্রনয়ন করা এখন সময়ের দাবি । এ ক্ষেত্রে মহান জাতীয় সংসদ কতৃক পাশ কৃত জাতীয় শিক্ষা নীতি ২০১০ এর ২৭ নং অধ্যায় অনুসরণ করা যেতে পারে । কিছু কর্মকর্তার সিদ্ধান্ত দেশের শিক্ষাব্যবস্থার উন্নয়ন/অবনমন ঘটতে পারে। দেশের জনগন কমিটির সিদ্ধান্তের দিকে তাকিয়ে আছে । তাই সঠিক এবং সময়োপযুগী MPO নীতিমালা প্রনয়ন করবেন এটাই জাতির প্রত্যাশা।
ড.মো. এমদাদুল ইসলাম
সভাপতি
এম.ফিল, পিএইচ.ডি. ডিগ্রিধারী শিক্ষক সমিতি


Categories