প্রকাশিত: ১১:২৫ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২১, ২০২১

এমপিও নীতিমালাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষকের কোচিং বাণিজ্য

স্টাফ রিপোর্টারঃ নওগাঁর মান্দার সতিহাট কে টি উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজে সরকারি নির্দেশনা ও এমপিও নীতিমালাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে নিজ প্রতিষ্ঠানের শ্রেণীকক্ষে প্রতিষ্ঠানের ৪ জন শিক্ষক মিলে পর্যায়ক্রমে প্রধান শিক্ষকের যোগসাজশে কোচিং বাণিজ্য করে যাচ্ছে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে প্রতিষ্ঠানটির সহকারী শিক্ষক নাজমুল হোসেন, মোঃ বাচ্চু, মোঃ আনোয়ার হোসেন ও দিজেন্দ্রনাথ সরকার মিলে নিজ প্রতিষ্ঠানের একটি শ্রেণীকক্ষে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে মাসিক ৭শত টাকার বিনিময়ে কোচিং বাণিজ্য করে যাচ্ছেন। প্রতিদিন সকাল ৭ টা ৪০ মিনিট থেকে সকাল ১০টা পর্যন্ত চলে এ কোচিং। সরেজমিনে তথ্যটি যাচাইয়ের জন্য প্রতিষ্ঠানে গেলে সাংবাদিকের উপস্থিতি দেখে কোচিং না চালিয়ে শিক্ষার্থীদের ছুটি দিয়েদেন শিক্ষক বাচ্চু। তিনি সাংবাদিককে কোচিং করার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, করোনা কালীন সময়ে আমরা কোচিং চালায়নি, তার পূর্বে চালানো হয়েছিল। তিনি আরও বলেন, গত ১২ জুলাই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার পর আমরা আবারও কোচিং চালু করেছি। আপনারা এমপিওভুক্ত শিক্ষক হয়ে এভাবে কি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিজ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের নিয়ে কোচিং বাণিজ্য করতে পারেন? দৈনিক শিক্ষা ডটকমের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, না তা অবশ্য পারিনা। এসময় তিনি আরও বলেন, সব শিক্ষার্থী ৭ শত টাকা দেননা, কোন কোন শিক্ষার্থী ৩/৪ শত টাকাও দেন।
এব্যাপারে কোচিং বাণিজ্যে জড়িত শিক্ষকগণ সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আমরা এতোদিন প্রতিষ্ঠানে কোচিং চালিয়েছি। আগামীকাল থেকে আর চালাবো না। এবিষয়ে তারা নিউজ প্রকাশ না করার জন্যেও অনুরোধ করেন।
এবিষয়ে প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ মো. লুৎফর রহমান সরেজমিনে বলেন, শিক্ষার্থীদের ফলাফল ভালো করার জন্য শিক্ষকগণ কোচিং ক্লাস নিয়েছেন।

Categories