শুভ সংঘের ত্রাণ নিয়া আইজক্যা ছেলেপুলে নিয়া প্যাট ভইরা খামু।

প্রকাশিত: ৭:১৮ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৭, ২০২১

আবদুল জলিলঃ কাজিপুর (সিরাজগঞ্জ) থেকেঃ

শুভ সংঘের ত্রাণ নিয়া আইজক্যা ছেলেপুলে নিয়া প্যাট ভইরা খামু।

 হাতে কোন কাম কাজ নাই। বাইরে বাইর হওয়া মানা। কি খামু! ঘরের জমানো সব শ্যাস। দুইদিন আগে একটা টোকেন পাইলাম। আইজ চাল ডাইল আটা পাইলাম। ছলপল নিয়া প্যাট ভইরা খামু। কথাগুলো বলছিলেন ত্রাণ নিতে আসা কাঠমিস্ত্রি রেজাউল করিম। কাঠের যাদুকর। কাঠকে রূপ দিতে পারেন বিভিন্ন রূপে। হাতের শৈলীতে যেকোনো নকশা বুনতে পারেন। ঘর বানানো থেকে শুরু করে আসবাবপত্র সব কিছুই তার হাতের নাগালে।

মানুষের বাড়ি বাড়ি ঘুরে কারুকার্যময় করে দেন দেন ঘর, চেয়ার, টেবিল কিংবা খাট-পালঙ্ক। কিন্তু তার শৈলীতে বাগড়া দিয়েছে করোনা। দেড় বছর ধরে করতে পারছেন না কোনো কাজ। ভাটা পড়েছে কাজে। একইসঙ্গে সংকুচিত হয়েছে আয়ের পথ। পাঁচ সদস্যের সংসার চলে তার উপার্জনে। সব মিলিয়ে টানাপড়েন জীবন পার করছেন তিনি। কালের কণ্ঠ শুভসংঘের খাদ্যসামগ্রী পৌঁছেছে রেজাউলের পরিবারেও। খাদ্য সহায়তা পেয়ে তিনি বলেন, আমাদের এই অসহায় সময়ে খাবার দিলেন। খুব উপকার হইলো। আপনাদের ধন্যবাদ জানাই।

রেজাউলের মতো কালাম শেখও কাঠমিস্ত্রি। পঙ্গু হয়েছেন বছর তিনেক আগে। এরপর থেকে তিনিও কোনো কাজ করতে পারছেন না। তার হাতেও তুলে দেওয়া হয় খাদ্যসামগ্রী। সহায়তা পেয়ে বসুন্ধরা গ্রুপের জন্য হাত তুলে দোয়া করে বলেন, আল্লা বসুন্ধরা গ্রুপের মালিকক ছোল-পোল ভালো রাখুক। তাকে শান্তিতে রাখুক।

আজ শনিবার সিরাজগঞ্জ জেলার কাজিপুর উপজেলায় তাদের মতো ৩০০ অসহায় ও দুস্থ ও কর্মহীন পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেছে কালের কণ্ঠ শুভসংঘ। বসুন্ধরা গ্রুপের সহায়তায় সকলের মাঝে ১০ কেজি চাল, তিন কেজি ডাল ও তিন কেজি আটা দেওয়া হয়। উপজেলা পরিষদ মাঠে স্বাস্থ্যবিধি মেনে এই খাদ্য সহায়তা দেওয়া হয়।

খাদ্যসামগ্রী বিতরণ কার্যক্রমে ভার্চুয়ালি অংশ নিয়েছেন সিরাজগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য প্রকৌশলী তানভীর শাকিল জয়। দেশব্যাপী বসুন্ধরা গ্রুপের খাদ্য সহায়তা কার্যক্রম শোককে শক্তিতে পরিণত করার চেতনার সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ উল্লেখ করেন তিনি। বলেন, করোনার মধ্যে ক্ষতিগ্রস্ত কর্মজীবী ও অসহায়দের জন্য কালের কণ্ঠ শুভসংঘের এই মহতী উদ্যোগকে সাধুবাদ ও ধন্যবাদ জানাই। আমাদের কাজীপুরের অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য তাদের প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা জানাই। আমি মনে করি বসুন্ধরা গ্রুপের এই উদ্যোগ বঙ্গবন্ধুর আদর্শে আগস্ট মাসের শোককে শক্তিতে পরিণত করার চেতনার সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ। আমরা আশা করি আপনাদের এই উদ্যোগ অব্যাহত থাকবে। এই মহতী কার্যক্রম দেখে দেশের বড় শিল্প প্রতিষ্ঠান অনুপ্রাণিত হয়ে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াবেন সেই প্রত্যাশা করি।

খাদ্যসামগ্রী বিতরণ কার্যক্রমে আরো উপস্থিত ছিলেন কাজিপুর উপজেলা চেয়ারম্যান খলিলুর রহমান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জাহিদ হাসান সিদ্দিকী, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা পঞ্চনন্দ সরকার, কালের কণ্ঠ শুভসংঘের পরিচালক জাকারিয়া জামান, কালের কণ্ঠের বগুড়া ব্যুরো প্রধান লিমন বাসার, সিরাজগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি অসীম মন্ডল, শুভসংঘের বগুড়া জেলার উপদেষ্টা মোস্তফা মাহমুদ শাওন, শুভসংঘের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য শরীফ মাহ্দী আশরাফ জীবন, বগুড়া জেলার সদস্য মশিউর রহমান জুয়েল, কাজিপুর উপজেলা শাখার প্রধান উপদেষ্টা বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের ডেপুটি ডিরেক্টর আব্দুর রাজ্জাক ও কথা সাহিত্যিক রিপন আহসান ঋতু, সভাপতি বিশিষ্ট ব্যবসায়ি শরিফুল ইসলাম সোহেল, সাধারণ সম্পাদক ডা. আশকারুল হক পাইনসহ শাহআলম, আবু বাশির সবুজ, আশা সরকার, আশরাফুল আলম, নুরুজ্জামান, আব্দুল লতিফ, শফিকুল ইসলাম, নুসরাত মৌ, তোতা মিয়া, সাব্বির আহমেদ, রিমন হাসান, সাথী আক্তার ও উত্তরা ইউনিভার্সিটির সাবেক সভাপতি আলমগীর হোসেন রনি প্রমুখ।


Categories