৯৯৯ এ ফোন; পথ হারিয়ে ফেলা ৫০ যুবককে উদ্ধার করল নৌ পুলিশ

প্রকাশিত: ১২:১২ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ৫, ২০২০

পথ হারিয়ে ফেলা ৫০ যুবককে উদ্ধার করেছে নৌ পুলিশ। নৌ পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া) ফরিদা পারভীন এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, রাত গভীর, চারদিকে সুনসান নীরবতা, আকাশে মেঘের ঘনঘটা। বাংলাদেশ পুলিশের জরুরি সেবায় নিয়োজিত ফোন নম্বার ৯৯৯ থেকে এক মেয়ে কণ্ঠ বলে উঠল ‘এটা কি বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম পাড়? কিছু যুবক পথ হারিয়ে ফেলেছে তাদেরকে উদ্ধার করতে হবে।’ পুলিশ পরিদর্শক জনাব, এম এ মান্নান বললেন ‘এটা সেতুর পূর্ব পাড়। আমি পশ্চিমে যিনি কাজ করছেন তার ফোন নম্বর দিচ্ছি।’ মেয়ে পুলিশ সদস্যটি বললো ‘স্যার যদি সম্ভব হয় আপনি এখনি উদ্ধার কর্যক্রম শুরু করে দিন। তারা আতংকিত এবং ভয় পাচ্ছে।’

উদ্ধার হওয়া যুবকরা জানান, বেশিরভাগ ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীরা অনলাইনে ক্লাস শুরু করেছে ফলে বাড়ি থেকে বাইরে যাওয়া প্রায় বন্ধ। অনেক ছাত্র ঘরে বসে হাঁপিয়ে উঠেছে। তাই বুক ভরে নিঃশ্বাস নিতে ও দিনটা আনন্দের প্রাচুর্যতায় ভরিয়ে দিতে এক ঝাঁক উৎসাহিত বালক ও যুবক নৌকা নিয়ে বর্ষার সৌন্দর্য্য উপভোগ করতে বের হয়। যেই ভাবা সেই কাজ। সোমবার সকাল ১০ টায় পিকনিক করার উদ্দেশ্যে নৌ ভ্রমণে বের হন তারা। গন্তব্য বঙ্গবন্ধু সেতু। বঙ্গবন্ধু সেতু চারদিকে বর্ষার থৈ থৈ পানি আর হিমেল হাওয়া উড়ু– উড়ু– করে দেয় মন। সিদ্ধান্ত নেন সারা দিন নদী ভ্রমণ করবেন।

তারা বলেন, কিন্তু বঙ্গবন্ধু সেতু পরিদর্শনে আগত ৫০ জন যুবক পরে যায় মহাবিপাকে। তাদের অনেকে টাঙ্গাইল জেলার নাগরপুর উপজেলার দাপ্তিক ইউনিয়নের মাইঝাইল গ্রামের তরুণ স্থানীয় কলেজে ১ম বর্ষে পড়াশোনা করে।  বুদ্ধি করে ৯৯৯ এ ফোন করেন। এর মধ্যে ১৩ জন বালক দৌলতপুর পিএস হাইস্কুল এবং তিনজন বালক মাইঝালি বাজার প্রাইমারি স্কুলে পড়ালেখা করে। এছাড়াও রয়েছে মাতিলাল ডিগ্রি কলেজ দৌলতপুর মানিকগঞ্জের ১৬ জন ছাত্র। সঙ্গে বাদ্যযন্ত্র বাজানোর টেকনিশিয়ান এবং নৌকার মাঝি। সারাদিন নদীতে কাটানোর পর সন্ধ্যা ৭টার দিকে নাগরপুরে ফেরার পথে নৌকাটির ইঞ্জিন নষ্ট হয়ে যায়। মাঝি নৌকার ইঞ্জিন মেরামতের শত চেষ্টা ব্যর্থ হয়। এরপর প্রকৃতির নিয়মে নদীর তীব্র স্রোতের কারণে নৌকাটি ভাসতে ভাসতে যমুনা সেতু থেকে প্রায় ২২ থেকে ২৫ কিলোমিটার ভাটিতে সিরাজগঞ্জের বেলকুচি থানার অধীন নদীর মাঝে ছোট চরে আটকা পড়ে। ইতিমধ্যে নৌকার ভীত সন্ত্রস্ত যাত্রীরা ৯৯৯ এ কল করে উদ্ধার পেতে সাহায্য কামনা করে।

নৌ পুলিশ জানায়, তারপর নৌ পুলিশের চৌহালী স্টেশন, বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব নৌ পুলিশ স্টেশন, বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম নৌ পুলিশ স্টেশন, সিরাজগঞ্জ নৌ পুলিশ স্টেশন তৎপর হয়ে ওঠে। ক্রমাগত ফোনে যোগাযোগ করতে থাকে নৌ পুলিশ সদস্যরা। এক পর্যায়ে যাত্রীসহ নৌকার অবস্থান খুঁজে বের করে বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্ব নৌ পুলিশ স্টেশন।

তারা জানান, পুলিশ পরিদর্শক মান্নান ভুক্তভোগীদের জন্য বিশুদ্ধ খাবার পানি, শুকনো খাবার নিয়ে নেন। নৌ পুলিশের কর্ম তৎপরতা ও আতিথিয়তার জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে যুবকের দল। ততক্ষণে মধ্যরাত পেরিয়ে ভোর ৪টা বেজে গেছে। এবার টেকনিশিয়ানকে ডেকে নৌকা মেরামত করে বাড়ি পাঠায় নৌ পুলিশ।


Categories