“সিকৃবিতে দাপ্তরিক কার্যক্রম করোনাকালেও পুরোদমে চলছে”

প্রকাশিত: ১:৪০ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ১৬, ২০২০

সিলেট থেকে ::

সরকার ঘোষিত করোনাকালীন সাধারণ ছুটির মধ্যেও সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার বদরুল ইসলাম শোয়েব বিশ্ববিদ্যালয়ে দৈনন্দিন দাপ্তরিক কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছেন । দাপ্তরিক কার্যক্রমকে গতিশীল রাখতে জরুরি কাজে অন্যান্য কর্মকর্তাদের সাথে নিয়ে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন তিনি। সততা ও দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালনের মধ্য দিয়ে রেজিস্ট্রার শোয়েব বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যক্রমকে এগিয়ে নিচ্ছেন বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

বদরুল ইসলাম শোয়েব জানান, সারাবিশ্বে মহামারী করোনা ভাইরাসের কোভিড-১৯ এর প্রভাব পড়েছে। সংক্রমণের বিস্তৃতি রোধে বিশ্বের অধিকাংশ দেশের মতো আমাদের দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়। শুরুতে পাঠদান কার্যক্রম বন্ধের পাশাপাশি দাপ্তরিক কার্যক্রম সীমিত সময়ের জন্য বন্ধ রাখা হয়েছিলো। বর্তমানে দেশের করোনা পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হয়েছে বলে সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা দাপ্তরিক কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছি।

তিনি জানান, যেহেতু রেজিস্ট্রার কার্যালয় বিশ্ববিদ্যালয় দাপ্তরিক কার্যক্রমের মূল ‘নিউক্লিয়াস সেল’ এজন্য করোনা কালের শুরুতেও সীমিত পরিসরে আমরা প্রতিদিন কার্যক্রম চালিয়ে গেছি। বিশ্বাস আর মনোবলকে পুঁজি করে এবং আল্লাহর উপর ভরসা করে প্রতিদিন বিশ্ববিদ্যালয়ে অফিস করছি। বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. মতিয়ার রহমান হাওলাদার নিয়মিত দাপ্তরিক কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন এবং সার্বক্ষণিক প্রয়োজনীয় নির্দেশনাও দিচ্ছেন।

এসময় তিনি আরও বলেন, করোনা ভাইরাসের কারণে গত মার্চ মাসের মাঝামাঝি সময় থেকে শহর ও গ্রামে অনেকে কর্মহীন হয়ে পড়েন। সরকারি সহায়তার পাশাপাশি ব্যক্তি উদ্যোগে তাদের সহায়তা প্রদানের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্দেশনা দিয়েছেন। সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীদের একদিনের বেতন আর্থিক অনুদান হিসেবে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে প্রদান করা হয়েছে। ব্যক্তি উদ্যোগেও আমরা বিভিন্নভাবে সহায়তা কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছি।

এই ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন কর্মকর্তা জানান, করোনাকালে দাপ্তরিক কার্যক্রমে অংশ নিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার বদরুল ইসলাম শোয়েব আমাদের সাহস যুগিয়ে যাচ্ছেন। দাপ্তরিক কার্যক্রমে আমরা যাতে পিছিয়ে না পড়ি সেজন্য স্বাস্থ্যবিধি মেনে তার অনুপ্রেরণায় কাজ চালিয়ে যাচ্ছি।