সাতক্ষীরা হতে মানব পাচারকারী ০২ সক্রিয় সদস্য’কে গ্রেফতারপূর্বক ০১জন ভিকটিম’কে উদ্ধার করেছে র‌্যাব-৬।

প্রকাশিত: ১১:২৯ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২৮, ২০২১

মোঃ মিজানুর রহমান।

সাতক্ষীরা হতে মানব পাচারকারী ০২ সক্রিয় সদস্য’কে গ্রেফতারপূর্বক ০১জন ভিকটিম’কে উদ্ধার করেছে র‌্যাব-৬।

র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে সবসময় বিভিন্ন ধরণের অপরাধীদের গ্রেফতারের ক্ষেত্রে অত্যন্ত অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছে। র‌্যাবের সৃষ্টিকাল থেকে চাঁদাবাজ, সন্ত্রাসী, খুনী, অবৈধ অস্ত্র গোলাবাররুদ উদ্ধার, ছিনতাইকারী, মাদক ব্যবসায়ী, অপহরণকারী ও প্রতারক গ্রেফতার এবং মাদক দ্রব্য উদ্ধারসহ সাধারণ জনগণের মনে আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে। এছাড়াও বিভিন্ন সময়ে সংগঠিত চাঞ্চল্যকর অপরাধে জড়িত অপরাধীদের আইনের আওতায় এনে র‌্যাব জনগনের সুনাম অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে।

এরই ধারাবাহিকতায় অদ্য ২৮ ডিসেম্বর ২০২১ তারিখ ১২.০৫ ঘটিকার সময় র‌্যাব-৬, সিপিসি-১ সাতক্ষীরার একটি চৌকস আভিযানিক দল গোপন সংবাদের মাধ্যমে জানতে পারে যে, কতিপয় মানব পাচারকারী কৌশলে একজন পুরুষকে পার্শ্ববর্তী দেশে পাঁচারের উদ্দেশ্যে বাংলাদেশ-ভারতের সীমান্তবর্তী সাতক্ষীরা জেলার কলারোয়া থানাধীন কেড়াগাছী ইউনিয়নের ০৪ নং ওয়ার্ডের বোয়ালিয়া গ্রামের ফকির পাড়া মোড়ে মের্সাস জারিফ ট্রেডার্সের সামনে পাকা রাস্তার উপর অবস্থান করছে।

উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে গোয়েন্দা তথ্যের সত্যতা যাচাই ও আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের উদ্দেশ্যে আভিযানিক দলটি উক্ত স্থানে অভিযান পরিচালনা করে মানব পাচারকারীর সক্রিয় সদস্য ১। মোঃ মাকসুদুজ্জামান (২৮), পিতা-মোঃ দবির উদ্দিন মোল্লা, মাতা-রিজিয়া খাতুন, সাং-উত্তর ভাদিয়ালী ২। মোঃ মফিজুল ফকির (৩০), পিতা-মৃত মোতালেব ফকির, মাতা-রুপিয়া বেগম, সাং-রাজপুর,  উভয় থানা-কলারোয়া, জেলা-সাতক্ষীরাদ্বয়’কে ক। ০২টি মোবাইল খ। ০৩টি সীমকার্ড গ। নগদ-১,৯১৫/- টাকাসহ গ্রেফতারপূর্বক ভিকটিম ১। আশিষ কুমার দাস (৪৫), পিতা-মৃত মুকুন্দ লাল দাস, মাতা-মিনা রানী দাস, সাং-আই-১৬৭/উত্তর বিলাসপুর, গাজীপুর, ওয়ার্ড নং ২৬, থানা-গাজীপুর সদর, জেলা-গাজীপুর’কে উদ্ধার করে।

পরবর্তীতে গ্রেফতারকৃত আসামীদ্বয়ের বিরুদ্ধে সাতক্ষীরা জেলার কলারোয়া থানায় ২০১২ সালের মানব পাচার প্রতিরোধ ও দমন আইনে মামলা রুজু করা হয়।


Categories