“শিরোপাপথে জুভেন্টাস- অপ্রতিরোধ্য রোনালদো”

প্রকাশিত: ১১:৩১ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ৫, ২০২০

করোনাভাইরাস বিরতি পরবর্তী সিরি’এ লিগে ফিরে তিন ম্যাচেই গোল করেছেন রোনালদো। আক্রমণভাগে তার সঙ্গী আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকারও ছিলেন গোলের নিশ্ছিদ্র পথে। আশ্চর্যজনকভাবে শনিবার রাতেও গোল করলেন জুভেন্টাসের দুই তারকা!

রোনালদো আর দিবালার আগুনঝরা পারফরম্যান্সের সুবাদে ডার্বি ম্যাচে তুরিনোকে ৪-১ গোলে বিধ্বস্ত করেছে জুভেন্টাস। কিন্তু ম্যাচ শেষে পাদ প্রদীপে থাকলেন শুধুই রোনালদো। ‘সিআর সেভেন’কে লাইমলাইটের নিচে এনেছে ফ্রি-কিক থেকে করা দুর্দান্ত এক গোল। কাল রাতে ফ্রি-কিক থেকে ঘূর্ণি এক শটে তুরিনের জালে বল জড়ান রোনালদো।

তাতে স্বস্তির একটা নিঃশ্বাস ছাড়লেন রোনালদো। একসময় ফ্রি-কিক থেকে নিয়মিত গোল করা রোনালদো ক্রমেই হতাশ হচ্ছিলেন। অবশেষে ৪৩তম ফ্রি-কিকে এসে গোল পেলেন তিনি। তুরিন ডার্বিতে এটা ছিল চতুর্থ গোল। জুভেন্টাসের পক্ষেই তিনটি। ম্যাচের শুরুতেই স্বাগতিকদের উচ্ছ্বাসে ভাসান দিবালা। ২৯ মিনিটে রোনালদোর অ্যাসিস্ট থেকে ব্যবধান বাড়ান ‍হুয়ান কুয়াদ্রাদো।

বিরতিতে যাওয়ার আগে বেলোত্তির পেনাল্টি গোলে ব্যবধান কমায় তুরিনো। দ্বিতীয়ার্ধে তাদের ফেরার আশা শেষ করে দেন রোনালদো। করেন গোল। তাতেই হলো ইতিহাস। ১৯৬১ সালের পর জুভেন্টাসের প্রথম ফুটবলার হিসেবে লিগের এক মৌসুমে ২৫টি গোল করলেন রোনালদো। ম্যাচের শেষ সময়ে ডিজিডজির আত্মঘাতী গোলে বড় জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে জুভেন্টাস। এই জয়ে শিরোপার আরো কাছে চলে এসেছেন রোনালদোর জুভেন্টাস।

কারণ অন্য ম্যাচে যে হেরে বসেছে তাদের শিরোপা প্রতিদ্বন্দ্বী লাৎসিও!  কেননা কাল রাতে লাৎসিওর মাঠে এসে তাদেরই ৩-০ গোলে বিধ্বস্ত করেছে মিলান জায়ান্টরা। এসি মিলানের হয়ে গোলগুলো করেছেন যথাক্রমে হাকান কালহানোগু, জ্লাতান ইব্রাহিমোভিচ ও অ্যান্তি রেবিচ। এই হারে শিরোপা দৌড় থেকে অনেকটাই পিছিয়ে গেল লাৎসিও।

জুভেন্টাসের সঙ্গে তাদের পয়েন্ট ব্যবধান বেড়ে হলো সাত। ৩০ ম্যাচে ৭৫ পয়েন্ট নিয়ে সবার ওপরে থাকল জুভেন্টাস। ৬৮ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে লাৎসিও। এক ম্যাচ কম খেলে ৬৪ পয়েন্ট নিয়ে তিনে আছে ইন্টার মিলান। ৬০ পয়েন্ট নিয়ে আটালান্টা চার ও ৪৮ পয়েন্ট নিয়ে পাঁচে আছে এএস রোমা। লাৎসিওকে গুঁড়িয়ে ছয়ে উঠে এসেছে এসি মিলান। তাদের পয়েন্ট ৪৬; নাপোলির ৪৫।


Categories