শিক্ষক নেতা অধ্যক্ষ রফিকুল ইসলামের মৃত্যু; শিক্ষক নেতৃবৃন্দের শোক প্রকাশ

প্রকাশিত: ১০:০৭ অপরাহ্ণ, জুন ১০, ২০২০

বাংলাদেশ বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারি ফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম মহাসচিব জনাব মো. রফিকুল ইসলাম ১০ জুন,২০২০  (মঙ্গলবার দিবাগত রাত) রাত ৩:১০ ঘটিকায় ভোলা সদরের আলিয়া মাদ্রাসা সড়কে নিজ বাসভবনে শ্বাসকষ্ট জনিত কারণে ইন্তেকাল করেছেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন। সকাল ১০ ঘটিকায় তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। জনাব রফিকুল ইসলাম  ভোলা সদর উপজেলার পশ্চিম বাপ্তা আদর্শ স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ এবং ভোলা মেডিকেল সাইন্স এন্ড টেকনোলজির পরিচালক ছিলেন। তিনি ভোলা জেলার স্কাউট লিডার ছিলেন। তিনি অনলাইন পত্রিকা ভোলা নিউজের প্রধান সম্পাদক হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন।  মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৪২ বছর। তিনি স্ত্রী, ১ ছেলে এবং ২ কন্যা এবং অসংখ্য গুণগ্রাহি রেখে গেছেন।
ব্যক্তি জীবনে একজন পরোপকারী ও সদালাপী ব্যক্তি জনাব রফিকুল ইসলাম বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারিদের বিভিন্ন অধিকার আদায়ের আন্দোলনে সর্বদা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন এবং প্রতিটি শিক্ষক আন্দোলনে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন।
মো. রফিকুল ইসলামের মৃত্যুতে গভীর শোক জানিয়েছেন বিভিন্ন শিক্ষক সংগঠনের  নেতৃবৃন্দ। বাংলাদেশ বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারি ফোরামের সভাপতি সাইদুল হাসান সেলিম এবং মহাসচিব আব্দুল খালেক এক শোকবার্তায় মো. রফিকুল ইসলামের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন এবং তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা প্রকাশ করেছেন। শিক্ষক ফোরামের সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল ইসলাম মাসুদ রফিকুল ইসলামের মৃত্যতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন এবং তাঁর  রুহের মাগফিরাত কামনা করেছেন। স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদ (স্বাশিপ) এর সাধারণ সম্পাদক ও কল্যাণ ট্রাস্টের সদস্য সচিব অধ্যক্ষ মোঃ শাহজাহান আলম সাজু নিজ সংগঠনের ফেসবুক পেজে শোকবার্তায় লিখেছেন , “বিশিষ্ট শিক্ষক নেতা,বাংলাদেশ বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারী ফোরামের যুগ্ম মহাসচিব,জনাব মোঃ রফিকুল ইসলামের অকাল প্রয়াণে আমি অত্যন্ত মর্মাহত। তাঁর এই অকাল মৃত্যু আমাদের বাকরুদ্ধ করেছে। তাঁর এই মৃত্যতে স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদের পক্ষ থেকে আমরা গভীর শোক প্রকাশ করছি। একই সাথে মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনা এবং তাঁর শোকসন্তপ্ত পরিবারবর্গের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করছি।” শিক্ষক ইউনিয়নের সভাপতি আবুল বাশার হাওলাদার তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে লিখেছেন, “ভোলা জেলার পশ্চিম বাপ্তা স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ, বাবেশিকফোর যুগ্ম মহাসচিব মো: রফিকুল ইসলামের অকাল মৃত্যুতে বাংলাদেশ শিক্ষক ইউনিয়নের পক্ষ থেকে গভীর শোক প্রকাশ করছি।” বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি (নজরুল) এর সভাপতি নজরুল ইসলাম রনি বলেন বিশিষ্ট শিক্ষক নেতা রফিকুল ইসলাম রফিক ভাই আর আমাদের মাঝে নেই। ২০১৮সালের ১০ জানুয়ারি জাতীয়করণের দাবিতে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে ১৯দিন যে আন্দোলন সংগ্রাম হয়েছিল তার পুরো কৃতিত্ব রফিক ভাইয়ের ছিল। ওনার অকালমৃত্যুতে বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতির কেন্দ্রীয় সভাপতি  জনাব মোঃ নজরুল ইসলাম রনি এবং  মহাসচিব জনাব মোঃ মেজবাহুল ইসলাম প্রিন্স এক বিবৃতিতে গভীর শোক ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন। । বাংলাদেশ মাদরাসা জেনারেল টিচার্স এসোসিয়েশন তাদের ফেসবুক পেজে শোকবার্তায় লিখেছে, “শিক্ষক কর্মচারী ফোরামের যুগ্ম মহাসচিব জনাব রফিকুল ইসলাম স্যারের অকাল মৃত্যুতে বাংলাদেশ মাদ্রাসা জেনারেল টিচার্স এসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে গভীর শোক প্রকাশ করছি। আমরা তাঁর আত্মার শান্তি কামনা সহ শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করছি।” বাংলাদেশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কর্মচারী ফেডারেশনের সভাপতি এম.আরজু লিখেছেন, শিক্ষক কর্মচারী ফোরামের যুগ্ন মহা-সচিব এবং শিক্ষা ব্যবস্থা জাতীয়করনের একজন আপোষহীন কন্ঠস্বর জনাব রফিকুল ইসলাম স্যার এর অকাল মৃত্যুতে আমরা বাংলাদেশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কর্মচারী ফেডারেশনের পক্ষ থেকে গভীর ভাবে শোকাহত। আমরা স্যারের আত্মার শান্তি কামনা সহ শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করছি।

আরো শোক প্রকাশ করেছেন  শিক্ষক সমিতির মহাসচিব জনাব মো. জসিম উদ্দিন, শিক্ষা জাতীয়করণ আন্দোলন পরিষদের সভাপতি জনাব ওয়ালি আযাদ, জাতীয়করণ মঞ্চের সভাপতি জনাব আফজালুর রশিদ, শিক্ষক নেতা মো. রফিকুল ইসলাম, বিপ্লব কান্তি দাস,  মুদাচ্ছির আলম, জালাল উদ্দিন,  আব্দুল জব্বার, জি এম শাওন, মতিউর রহমান দুলাল, রেহান উদ্দিন, কামরুল হাসান,  মমিনুল ইসলামসহ বিভিন্ন শিক্ষক নেতৃবৃন্দ।

অধ্যক্ষ রফিকুল ইসলামের মৃত্যুতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও নেমে এসেছে শোকের ছায়া। শিক্ষকরা শোক প্রকাশ করে বিভিন্ন পোষ্ট দিয়েছেন।

১০ জুলাই সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় বাংলাদেশ বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারি ফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্যবৃন্দ অনলাইনে এক আলোচনা সভায় মিলিত হয়ে তারা মো. রফিকুল ইসলামের জীবন ও কর্মের উপর আলোচনা করেন। তাঁর সম্বন্ধে বলতে গিয়ে বেশিরভাগ বক্তাই কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। আলোচনা শেষে মরহুমের রুহের মাগফিরাাত কামনা করে দোয়া করা হয়। দোয়া অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন ফোরামের যুগ্ম মহাসচিব দেলোয়ার হোসেন আজিজি।