শিক্ষকদের সঠিক দিকনির্দেশনায় একই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ২২ জন মেডিকেলে ভর্তির সুযোগ।

প্রকাশিত: ৭:৪১ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ৭, ২০২১

শিক্ষকদের সঠিক দিকনির্দেশনায় একই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ২২ জন মেডিকেলে ভর্তির সুযোগ।

২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষের মেডিকেল কলেজে তথা এমবিবিএস কোর্সে  ভর্তির সুযোগ পেয়েছেন একই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সাবেক ২২ জন শিক্ষার্থী। তাদের মধ্যে যমজ দুই বোনও রয়েছে। অনন্য এই সাফল্য পেয়েছে কিশোরগঞ্জ সদরের এসভি সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়।

বিদ্যালয়টির প্রধান শিক্ষক শাহনাজ কবীর বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, এখন পর্যন্ত এখানকার ২২ শিক্ষার্থী মেডিকেলে ভর্তির সুযোগ পাওয়ার তথ্য নিশ্চিত হয়েছি। এই সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে ধারণা করছি আমরা।

পরীক্ষার ফলাফলে দেখা যায়, প্রতিষ্ঠানটি সাবেক শিক্ষার্থী যমজ বোন উত্তীর্ণ হয়েছেন, তারা হলেন- অমৃতি অরাত্রিকা ও নিভৃতি দ্যোতনা। তাদের মধ্যে অমৃতি সিলেটের এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজে এবং বগুড়া মেডিকেল কলেজে ভর্তির সুযোগ পেয়েছেন নিভৃতি।

অন্য ২০ জন হলেন- ১। নোসাইবা হোসেন সাবা, ২। সুলতানা আক্তার সাদিয়া, ৩। আরফাতুন নাহার সুমাইয়া, ৪। নওশীন তাবাসসুম ইসলাম, ৫। নিশাত নাবিলা, ৬। সাদিয়া হক, ৭। সিনথিয়া বিনতে মান্নান, ৮। তাজরিয়ান রাফিন মাহি, ৯। ফারহানা আক্তার বাঁধন, ১০। সায়মা আক্তার ও ১১। শেফা উম্মে সালমা সুস্মিতা  ১২। আনজুমান আরা শাম্মী, ১৩। আসমা সিদ্দিকা অংকন, ১৪। রেজওয়ানা আফরিন ইকরা, ১৫। নওশীন তাবাসসুম মৌনতা, ১৬। নূসরাত আরা নিদ্রা, ১৭। উম্মে হাবিবা অন্তু, ১৮। অনন্যা সাহা, ১৯। আনিকা তাসনিম অনি ও ২০। তাসফিয়া নওশীন।

তাদের মধ্যে সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজে ভর্তির সুযোগ পাওয়া নোসাইবা হোসেন সাবা বলেন, এই সাফল্যের পেছনে রয়েছে বিদ্যালয়টির শিক্ষকদের অবদান। তাদের সঠিক দিকনির্দেশনায় আমরা স্বপ্নপূরণের কাছাকাছি পৌঁছাতে পেরেছি আজ।