শিক্ষকতা একটি শিল্প, এটি শিখতে হয়, জানতে হয়

প্রকাশিত: ৯:৩৮ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ৫, ২০২০

 

বিশ্ববিখ্যাত অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. সেলিম জাহান বলেছেন, শিক্ষকতা একটি শৈল্পিক কাজ, এটি শিখতে হয়, জানতে হয়।একজন শিক্ষক কিন্তু সবজান্তা নয়, তাকে তার সীমাবদ্ধতার স্বীকার করতে হবে। ‘আমি জানি না’ এ কথাটি স্বীকার করার মধ্যে কোনো লজ্জা নেই। ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্য বিষয়ক প্রকাশনা ‘দ্যা ফিনিক্স ‘ এর উদ্যোগে  আয়োজিত ‘ইথিক্স অব টিচিং’ বিষয়ক  ভার্চুয়াল আলোচনায় তিনিে  একথা বলেন।

সেলিম জাহান আরো বলেন, শিক্ষকের ওপর শিক্ষার্থীদের বিশ্বাস থাকতে হবে, শ্রেণীকক্ষে ঢুকার আগে পর্যাপ্ত  প্রস্তুতি নিতে হবে। সমাজ ও রাস্ট্রের প্রচলিত মতবিশ্বাসের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হতে হবে। তিনি শিক্ষকদের আচরণ সম্পর্কে বলতে গিয়ে বলেন, শিক্ষার্থীদের সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ আচরণ আর তাদের বন্ধু হয়ে যাওয়া এক কথা নয়। শিক্ষকদের এ-ই বিষয়টি খেয়াল রাখতে হবে। শিক্ষকতার নীতি, নৈতিকতার প্রতি গুরুত্বআরোপ করে ড. সেলিম জাহান, শিক্ষকদের প্রত্যেকটি কাজের জন্য নিজের বিবেকের প্রতি জবাবদিহি থাকতে হবে কেননা তিনি শিক্ষার্থীসহ একটি সমাজের রোল মডেল।

তিনি বলেন, শিক্ষকরা যেমন শিক্ষার্থীদের রক্ষক, তেমনি সমাজেরও। একজন ডাক্তারের নীতি যখন একজন মানুষের জীবন বাঁচানো, তখন একজন শিক্ষকের নীতি হচ্ছে একটা জাতিকে রক্ষা করা।

শুক্রবার (৩ জুলাই) রাতে ইংল্যান্ডের অক্সফোর্ড থেকে ‘দ্যা ফিনিক্স’ এর আমন্ত্রণে তিনি এ আলোচনায় অংশ নেন। আলোচনার শুরুতে অতিথি জীবন ও কর্ম পরিচিতি উপস্থাপন করেন ‘দ্যা ফিনিক্স’ এর সম্পাদক, লেখক ও সংগঠক প্রণবকান্তি দেব। দেশ এবং প্রবাসের নানা প্রান্তের শিক্ষক, গবেষকদের অংশগ্রহণে প্রাণবন্ত এ অনুষ্ঠানে আলোচনা শেষে প্রশ্ন উত্তর পর্ব অনুষ্ঠিত হয়। এ পর্ব সঞ্চালনা করেন দ্যা ফিনিক্স এর সহকারী সম্পাদক নওরীন আক্তার কলি।

এ সময় অংশগ্রহণকারী বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে শিক্ষকতার চ্যালেঞ্জ এর কথা তুলে ধরেন। দ্য ফিনিক্স এর সহকারী সম্পাদক সুলতান আহমদ এর ধন্যবাদ জ্ঞাপনের মাধ্যমে আলোচনার সমাপ্তি ঘটে।

উল্লেখ্য, ইংরেজি ভাষা, সাহিত্য ও শিক্ষকতার উৎকর্ষতা চর্চার লক্ষ্য নিয়ে দ্যা ফিনিক্স গত তিন বছর যাবত ত্রৈমাসিকভাবে প্রকাশিত হয়ে আসছে। প্রকাশনার পাশাপাশি শিক্ষকতার উৎকর্ষ সাধনেও নিয়মিত কাজ করে যাচ্ছেন এর সাথে সংশ্লিষ্টরা।