রাণীনগরে যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূর মাথার চুল কেটে নির্যাতন,স্বামী গ্রেফতার

প্রকাশিত: ৬:১৪ অপরাহ্ণ, মার্চ ৩০, ২০২২

মামুনুর রশীদ, রাণীনগর (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর রাণীনগরে যৌতুকের দাবিকৃত চাহিদা অনুযায়ী টাকা না দেওয়ায় এক গৃহবধূর মাথার চুল কেটে নির্যাতন করে বাড়ি থেকে বের করে দেয়ার ঘটনায় মূলহোতা স্বামী ফিরোজ হোসেন (২৭) কে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। মঙ্গলবার রাতে চটগ্রামের চান্দগাঁও উপজেলার বরিশাল বাজার এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃত ফিরোজকে বুধবার দুপুরে আদালতে পাঠানো হয়েছে। ফিরোজ হোসেন উপজেলার মধুপুর গ্রামের রেজাউল ইসলামের ছেলে।

জানা যায়, গত ২০১৫ সালের ২৩ জানুয়ারি রাণীনগর উপজেলার মধুপুর গ্রামের ফিরোজ হোসেন পাশের ভান্ডারপুর গ্রামের হোসেন আলীর মেয়ে হাসিনা বেগম (২৪) কে বিয়ে করেন। বিয়ের দিন জামাইকে চুক্তি অনুযায়ী ব্যবসা করার জন্য ১ লাখ টাকা যৌতুক হিসেবে দেন হাসিনার বাবা। কিছুদিন পর থেকেই ফিরোজ হোসেন আরো ১ লাখ টাকা এনে দেয়ার জন্য তার স্ত্রী হাসিনা বেগমকে চাপ দিতে থাকেন। হাসিনা দাবি মেনে না নেওয়ায় স্বামী ও স্বামীর পরিবারের লোকজন তার উপর নির্যাতন শুরু করে। এক পর্যায়ে গত ২২ ফেব্রুয়ারি স্বামী ফিরোজ হোসেনের সাথে হাসিনা বেগমের চরম বাকবিতন্ডা হয়। প্রতিপক্ষ হিসেবে স্বামীর পরিবারের কয়েকজন আত্মীয় হাসিনাকে নির্যাতন করে। নির্যাতনকারীরা হাসিনার সারা শরীরে এলোপাতারী মারপিট করলে হাসিনা অজ্ঞান হয়ে পরে। এ সময় স্বামী ফিরোজ হোসেনসহ অন্যরা কেঁচি দিয়ে হাসিনা বেগমের চুল কেটে দেয়। পরে হাসিনাকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। এ ঘটনায় নির্যাতনের শিকার গৃহবধূ হাসিনা বেগম বাদি হয়ে স্বামীকে প্রধান আসামিসহ কয়েক জনের নাম উল্লেখ করে গত ২৮ ফেব্রুয়ারি নওগাঁর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ ট্রাইবুনাল আদালত-১ এ মামলা দায়ের করেন।

রাণীনগর থানার ওসি শাহিন আকন্দ জানান, আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী গত ১৩ মার্চ থানায় মামলা রের্কড করা হয়। ঘটনার পর থেকেই মূলহোতাসহ মামলার আসামিরা পলাতক। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রাণীনগর থানা পুলিশ মঙ্গলবার রাতে অভিযান চালিয়ে চটগ্রামের চান্দগাঁও উপজেলার বরিশাল বাজার এলাকা থেকে স্থানীয় পুলিশের সহযোগীতায় মূলহোতা স্বামী ফিরোজকে গ্রেফতার করেন। তাকে বুধবার দুপুুরে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। মামলার অন্যান্য আসামিদের গ্রেফতারের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।


Categories