রাণীনগরের গোনা ইউনিয়নে নির্বাচনী সহিংসতায় আহত ২৩

প্রকাশিত: ৫:৪৭ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৬, ২০২১

মামুনুর রশীদ, রাণীনগর (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর রাণীনগর উপজেলার গোনা ইউনিয়নে নির্বাচনী প্রচার ও ভোট প্রার্থনার সময় ঘোড়া প্রতীকের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুল আরিফ রাঙ্গা ও তার কর্মী এবং আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রার্থীর কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয় পক্ষের প্রায় ২৩ জন কর্মী আহত হয়েছেন। শনিবার বেলা ১১ টায় উপজেলার গোনা ইউপির প্রেমতলী বাজারে এ ঘটনাটি ঘটে।

গোনা ইউপির স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল আরিফ রাঙ্গা জানান, ঘোড়া প্রতীক নিয়ে চেয়ারম্যান পদে আসন্ন গোনা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। কর্মীদের নিয়ে প্রতিটি গ্রামে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে প্রচার ও ভোট প্রার্থনা করছেন। শনিবার বেলা ১১ টায় তার মহিলা কর্মীরা ইউনিয়নের ঘোষগ্রাম হিন্দু পাড়ায় ভোট চাইতে গেলে নৌকা প্রতিকের প্রার্থী আব্দুল খালেকের কর্মীরা বাধা প্রদান করে সেখান থেকে ফিরে দেয়। খবর পেয়ে তিনিসহ তার কর্মীদের নিয়ে প্রেমতলী বাজারে পৌছলে সরকার দলীয় নৌকা প্রতিকের কর্মীরা তার ও তার কর্মীদের উপর হামলা চালায়। হামলায় তিনি নিজেসহ প্রায় ১৪-১৫ জন কর্মী আহত হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি। এরমধ্যে ফজলে রাব্বি (৩৩), জাকারিয়া (২৬), মোয়াজ্জেম হোসেন (৩১), মেহেদি হাসান (২৩), বজলুর রশিদ (৪৬) মিজানুর রহমান (৫০) সহ ৭/৮ জনকে রাণীনগর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এর মধ্যে রাব্বিকে রাণীনগর থেকে নওগাঁ সদর হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

হামলার অভিযোগ অস্বীকার করে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুল খালেক বলেন, তার কর্মীরা প্রেমতলী বাজারে ভোট চাইতে গেলে স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল আরিফ রাঙ্গা ও তার প্রায় ৬০-৭০ জন কর্মীরা আমার কর্মীদের উপর হামলা চালিয়ে মারপিট করেছে। এতে কর্মী জুয়েলসহ প্রায় ৭-৮ জন আহত হয়েছে।

এ ব্যাপারে রাণীনগর থানার ওসি শাহিন আকন্দ বলেন, খবর পেয়ে সাথে সাথে ফোর্সসহ ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। এ ঘটনায় এখনো কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।


Categories