“রাজধানী ঢাকাকে ‘ওআইসি ইয়ুথ ক্যাপিট্যাল’ হিসেবে উদ্বোধন সোমবার”

প্রকাশিত: ৫:১৫ অপরাহ্ণ, জুলাই ২২, ২০২০

আগামী ২৭ জুলাই সোমবার ঢাকাকে ‘ওআইসি ইয়ুথ ক্যাপিট্যাল-২০২০’ হিসেবে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণা করবেন -প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা । গত বছর ডিসেম্বরে ওআইসি ঢাকাকে ইয়ুথ ক্যাপিট্যাল-২০২০ হিসেবে স্বীকৃতি প্রদান করেছিল।

‘মুজিবর্ষ’কে আকর্ষণীয় ও স্মরণীয় করে রাখতে গত ২০ এপ্রিল জাঁকজমকভাবে ইয়ুথ ক্যাপিটাল উদ্বোধন করার কথা ছিল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার। কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান তখন স্থগিত করা হয়।

মঙ্গলবার সচিবালয়ে ওআইসি ইয়ুথ ক্যাপিট্যাল-২০২০ উদযাপন উপলক্ষ্যে গঠিত কেন্দ্রীয় ব্যবস্থাপনা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সভায় ইয়ুথ ক্যাপিটাল উদ্বোধনের নতুন তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে ২৭ জুলাই সোমবার।

সভা শেষে কেন্দ্রীয় ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল এমপি জানিয়েছেন, ২৭ জুলাই বিকেল ৪টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঢাকাকে ‘ওআইসি ইয়ুথ ক্যাপিট্যাল-২০২০’ হিসেবে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন। বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে ওআইসি ইয়ুথ ক্যাপিটাল অনুষ্ঠানটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি উদ্বোধন করবেন।’

ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর সার্বিক পৃষ্ঠপোষকতায় বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা এ বছর ‘ওআইসি যুব রাজধানী’ হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষে এ স্বীকৃতি জাতি হিসেবে আমাদের গর্বিত করে। বিশ্বের ৭৫টি দেশের ১৩ শতাধিক তরুণ এই আয়োজনে অংশগ্রহণ করতে অনলাইনে আবেদন করেছেন।’

মুসলিম বিশ্বের তরুণদের দৃঢ় ভ্রাতৃত্বের বন্ধনে আবদ্ধ করার প্রয়াস এবং নানামুখী কৃতিত্বে উৎসাহ প্রদানের লক্ষ্যে ইসলামিক কো-অপারেশন ইয়ুথ ফোরাম ২০১৫ সাল থেকে প্রতিবছর ওআইসি সদস্যভুক্ত দেশসমূহকে ‘ওআইসি ইয়ুথ ক্যাপিটাল’ এর স্বীকৃতি প্রদান করে আসছে।

ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বলেছেন, ‘এই যুব সম্মেলনের অন্যতম উদ্দেশ্য হবে মিয়ানমার থেকে বিতাড়িত ও অত্যাচারিত রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর বিষয়ে বিশ্বব্যাপী যুব সম্প্রদায়কে সচেতন করা, মিয়ানমারের জবাবদিহিতা নিশ্চিতকরণ এবং রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর তাদের দেশে সম্মানজনক ও নিরাপদ প্রত্যাবসনে বিশ্বব্যাপী জনমত গড়ে তোলা। রোহিঙ্গা ক্যাম্প ভার্চুয়াল পরিদর্শন এবং দেশি-বিদেশি বিশেষজ্ঞদের উপস্থিতিতে প্যানেল আলোচনার মাধ্যমে যুব সম্প্রদায়কে রোহিঙ্গা সংকট বিষয়ে ব্যাপকভাবে সচেতন করা হবে।’

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও আপোষহীন সংগ্রামের গৌরবময় ইতিহাস বিশ্বের যুব সম্প্রদায়কে জানানোর তাগিদে ‘বঙ্গবন্ধু গ্লোবাল ইয়ুথ লিডারশিপ অ্যাওয়ার্ড’ প্রদান করা হবে।

বছরব্যাপী অন্যান্য আয়োজনের মধ্যে থাকবে কুরআন তিলাওয়াত প্রতিযোগিতা, ফিল্ম ফেস্টিভাল, চিত্রকলা প্রদর্শনী, বিতর্ক প্রতিযোগিতা, স্কাউট ক্যাম্প, কুইজ প্রতিযোগিতাসহ আরো অনেক কিছু। ১৮ থেকে৩৫ বছরের যে কোন যুবক প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহণ করতে পারবেন ।


Categories