যুবলীগ নেতাকে কুপিয়ে ও গলাকেটে হত্যা

প্রকাশিত: ৭:৪০ অপরাহ্ণ, জুন ১৪, ২০২০

বগুড়ায় প্রকাশ্যে দিবালোকে আবু তালেব (৩২) নামে এক যুবলীগ নেতাকে কুপিয়ে ও গলাকেটে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। রোববার বেলা দেড়টার দিকে শহরের আকাশতারা এলাকায় এ নৃশংস হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

পুলিশ লাশ উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। পুলিশ ও স্বজনরা এ হত্যাকাণ্ডের কারণ বলতে পারছে না।

সদর থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) রেজাউল করিম রেজা এর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, আবু তালেব শহরের আকাশতারা এলাকার আবদুস সামাদের ছেলে। তিনি যুবলীগ সাবগ্রাম বন্দর কমিটির সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। বালুসহ বিভিন্ন ব্যবসা ও ঠিকাদারি করতেন। তালেব রোববার বেলা দেড়টার দিকে শহরতলির সাবগ্রাম বন্দর এলাকা থেকে মোটরসাইকেলে আকাশতারার বাড়ি ফিরছিলেন। বাড়ির কাছে একটি সাবান কারখানার সামনে এসে পরিচিতদের সঙ্গে তিনি গল্প করছিলেন।

এ সময় বিভিন্ন দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত ৬-৭ জন দুর্বৃত্ত আবু তালেবের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। রামদা দিয়ে দুই হাত, দুই পাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে কোপায়। এরপর কাদার মধ্যে ফেলে গলা কেটে হত্যার পর এলাকা ত্যাগ করে দুর্বৃত্তরা।

নিহত তালেবের ভাই জাকারিয়া এ হত্যাকাণ্ডের ব্যাপারে নিশ্চিত করে কিছু বলতে পারেননি।

বগুড়া সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মিডিয়া) সনাতন চক্রবর্তী জানান, পূর্ব কোনো শত্রুতার জের ধরে আবু তালেবকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। হত্যার ক্লু উদঘাটন ও ঘাতকদের গ্রেফতারে পুলিশের একাধিক টিম মাঠে রয়েছে। বিকাল পর্যন্ত পুলিশ কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি।

বগুড়া জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম ডাবলু জানান, নিহত আবু তালেব তার সংগঠনের সাবগ্রাম বন্দর কমিটির সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। তিনি এ হত্যাকাণ্ডের তীব্র নিন্দা জানিয়ে অবিলম্বে জড়িতদের গ্রেফতার ও তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন।