মোবাইল ব্যাংকিং নয়,বিদ্যমান পদ্ধতিতেই মাসের এক তারিখে বেতন-ভাতা দিতে হবে

প্রকাশিত: ১:১৯ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ৩১, ২০২০

জনগণের ইচ্ছায় গণতন্ত্রের মূল ভিত্তি ।এক্ষেত্রে স্বেচ্ছাচারিতা ও খাম খেয়ালিপনার কোন স্থান নেই।এমপিভুক্ত বেসরকারি শিক্ষক পরিবার  ৯৭ শতাংশ  শিক্ষার্থীদের শিক্ষা নিশ্চিত করে ।রাষ্ট্রের সকল গুরু দায়িত্ব পালন করে ।সরকারের পাশে থেকে  সরকারের মঙ্গল কামনা করে। অথচ এমপিওভুক্ত শিক্ষক  কেন অবহেলিত আর   ন্যায্য অধিকার থেকে  বঞ্চিত  দিনের পর দিন।  এত অবহেলিত হওয়ার পরেও আবার নতুন করে ঘৃণ্য ষড়যন্ত্রের স্বীকার হতে চলেছে বেশিক পরিবার। মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে বেতন ভাতা প্রদানের সিদ্ধান্ত ।

মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে বেতন  ভাতা প্রদানের সিদ্ধান্ত বাতিল চাই -এমপিওভুক্ত শিক্ষক -কর্মচারীবৃন্দ  । ২০০ কোটি টাকা খরচ করে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন ভাতা প্রদান কতটুকু যুক্তিসংগত ? এমন  প্রশ্ন  শিক্ষক সমাজের,শিক্ষক সংগঠনের নেতৃত্ব ও  সমাজের সুধীজনের।মোবাইল ব্যাংকিংয়ের বাতিলের দাবিতে  সামাজিক  যোগাযোগ মাধ্যমে প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে  ।  এমপিওভুক্ত  শিক্ষক কর্মচারী মোবাইল ব্যাংকিংয়ের  মাধ্যমে বেতন ভাতা প্রদানের সিদ্ধান্ত বাতিল চাই, বিদ্যমান পদ্ধতিতেই প্রতি মাসের এক তারিখে বেতন ভাতা  চাই। 

জাতীয়করণ এখন   সময়ের দাবি, প্রাণের দাবি এই শ্লোগানে মুখরিত বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা  ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ । মুজিববর্ষই শিক্ষাব্যবস্থা   জাতীয়করণ ঘোষণা  অক্ষেক্ষায় বেশিক । এমনি এক মুহূর্তে  মোবাইল  ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে বেতন ভাতা প্রদানের সিদ্ধান্ত একটি ঘৃণ্য ষড়যন্ত্রের  বহিঃপ্রকাশ  মাত্র ।জাতীয়করণ আন্দোলন স্তব্ধ করার জন্য এ ঘৃণ্য ষড়যন্ত্র  । এমপিওশিক্ষক- কর্মচারীদের ছোট করে দেখার জন্যই এ ঘৃণ্য ষড়যন্ত্র । আর এ ঘৃণ্য ষড়যন্ত্রের সাথে  লিপ্ত   একশ্রেণীর স্বাধীনতা   বিরোধী আমলা  । আর এ  আমলাতান্ত্রিক জটিলতার কারণে এমপিওভুক্ত শিক্ষক কর্মচারী  স্বাধীনতার ৫০  বছর পরেও  অবহেলিত এবং বৈষম্যভ‌রা।মোবাইল  ব্যাংকিংয়ের  নামে প্রতারণা বন্ধ করুন ।শিক্ষকদের সাথে  প্রচারণায় জাতি প্রতারিত হবে। শিক্ষক কর্মচারীদের স্ব স্ব একাউন্টে বিদ্যমান পদ্ধতিতেই মাসের এক তারিখে বেতন ভাতা দিতে হবে  ।

লেখক :নূরুল ইসলাম

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক  সম্পাদক

বাংলাদেশের বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারী ফোরাম  ।


Categories