মার্কেন্টাইল ব্যাংক কর্মকর্তার টাকা আত্মসাৎ, অবশেষে শ্রীঘরে

প্রকাশিত: ১২:৩৪ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৩, ২০২০
স্টাফ রিপোর্টারঃ নওগাঁ সদরথানাধীন জনৈকা পম্মা রায় (৩১), গত (২৬ আগস্ট) থানায় লিখিত ভাবে জানান যে, তার স্বামী কার্তিক চন্দ্র মৃধা (৩৭) মার্কেন্টাইল কো-অপারেটিভ ব্যাংক লিঃ নওগাঁ শাখায় বিনিয়োগ কর্মকর্তা হিসাবে চাকরী করেন। ঐদিন সকাল অনুমান ০৮.৩০ ঘটিকার সময় সে বাড়ি থেকে বাজার করার উদ্দেশ্যে বাহির হয় এবং সন্ধ্যা পর্যন্ত আর ফিরে আসেনি এবং তাকে বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুজি করে পাওয়া যাচ্ছেনা।
অভিযোগের ভিত্তিতে নওগাঁ সদর মডেল থানার জিডি নং-১১৪২, তারিখ-২৬/০৮/২০২০ খ্রি. লিপিবদ্ধ করা হয়। জিডির বিষয়টি তদন্তকালে জানা যায় যে, উক্ত কার্তিক চন্দ্র মৃধা এলাকার পিন্টু প্রামানিক, অনিরুদ্ধ ঘোষ সহ বিভিন্ন লোকের কাছ থেকে টাকা ধার করেছে এবং ধারের টাকার পরিশোধ না করার কৌশল হিসাবে ও তাদেরকে ভয় দেখানোর উদ্দেশ্যে সে নিজে নিজে আত্মগোপন করেছে।
পরবর্তীতে নওগাঁ জেলার সুযোগ্য পুলিশ সুপার প্রকৌশলী জনাব আবদুল মান্নান মিয়া বিপিএম স্যারের নির্দেশনায় জনাব মোঃ রকিবুল আক্তার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন), জনাব আবু সাইদ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, সদর সার্কেল, নওগাঁ, জনাব মোঃ সোহরাওয়ার্দী হোসেন, অফিসার ইনচার্জ, জনাব মুঃ ফয়সাল বিন আহসান, পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) এর সার্বিক তত্ত্বাবধানে তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে তার অবস্থান চিহ্নিত পূর্বক নওগাঁ সদর মডেল থানার এসআই মোঃ হানিফ উদ্দিন মন্ডল, এএসআই মোঃ আলহাজ আলী খুলনা জেলার কয়রা থানা পুলিশের সহায়তায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে কার্তিক চন্দ্র মৃধাকে খুলনা জেলার কয়রা থানাধীন মহেশ্বরীপুর এলাকা থেকে উদ্ধার করা হয়।
পরবর্তীতে পিন্টু প্রামানিক এর লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে নওগাঁ সদর মডেল থানার মামলা নং-১০ (০২ সেপ্টেম্বর)  ধারা-৪০৬/৪২০ পেনাল কোড রুজ করা হয়। আসামীকে বর্ণিত মামলা সংক্রান্তে বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

Categories