“মাদরাসা ভবন পদ্মার গর্ভে , ঝুঁকিতে আছে স্কুল ও ইউনিয়ন পরিষদ”

প্রকাশিত: ১:৪২ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ১৯, ২০২০

মাদারীপুরের শিবচরে পদ্মায় অস্বাভাবিকভাবে পানি বৃদ্ধির ফলে ভাঙন ঝুঁকিতে রয়েছে একাধিক স্কুল, ইউনিয়ন পরিষদ ভবন, কমিউনিটি ক্লিনিক, বাজারসহ গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা। এছাড়া চরাঞ্চলের তিনটিসহ সাতটি ইউনিয়নে ভয়াবহ নদীভাঙন শুরু হয়েছে। ইতোমধ্যে তিন শতাধিক ঘরবাড়ি সরিয়ে নেয়া হয়েছে। ভেঙে পড়েছে সড়ক ও বিদ্যুৎব্যবস্থা।

চরাঞ্চলের পাঁচটি ইউনিয়নের কয়েক হাজার পরিবার বন্যাকবলিত হয়ে পড়ায় অনেকেই আশ্রয়কেন্দ্রে ঠাঁই নিয়েছেন। স্থানীয় সংসদ সদস্যের নির্দেশে জিও ব্যাগ ডাম্পিং করে ভাঙন প্রতিরোধের চেষ্টা করছে পানি উন্নয়ন বোর্ড। শুরু হয়েছে ত্রাণ তৎপরতা।

বন্যার্তরা জানান, কয়েক দিন ধরে দ্বিতীয় দফায় অস্বাভাবিক পানি বৃদ্ধি পেয়ে জেলার শিবচরের চরাঞ্চলের মাদবরচর, চরজানাজাত, কাঁঠালবাড়ী, সন্ন্যাসীরচর ও বন্দরখোলায় ব্যাপক নদীভাঙন দেখা দিয়েছে। নদীতে বিলীন হয়েছে চরজানাজাতের একটি মাদরাসা ভবন। তিনটি ইউনিয়নের অন্তত তিন শতাধিক ঘরবাড়ি সরিয়ে নেয়া হয়েছে।

এছাড়া ভাঙন ঝুঁকিতে রয়েছে তিনতলা বিশিষ্ট একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবন, ইউনিয়ন পরিষদ ভবন, কমিউনিটি ক্লিনিক ভবন, একটি বাজারসহ বিস্তীর্ণ জনপদ। পানিতে নিমজ্জিত হয়েছে চরের আট হাজার পরিবার। বন্যাকবলিত হয়ে অনেকেই আশ্রয়কেন্দ্রে আশ্রয় নিয়েছেন।

শিবচর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান জানান, নদীভাঙন প্রতিরোধে স্থানীয় সংসদ সদস্য চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরীর নির্দেশে জিও ব্যাগ ডাম্পিং করে ভাঙন প্রতিরোধের চেষ্টা করছে পানি উন্নয়ন বোর্ড। দুর্গতদের মাঝে ত্রাণ ও খাবার সহায়তা দেয়া হচ্ছে।