ব্যয় নির্বাহে কৃচ্ছতা করুন

প্রকাশিত: ৯:৫৮ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৩, ২০২০

অনুজীব করোনার প্রাদুর্ভাবে বিপর্যস্ত গোটা পৃথিবী। ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র করোনার দোর্দন্ড প্রতাপে বিশ্বের ক্ষমতাধর রাষ্ট্রগুলোও আজ অসহায় ও ক্ষতবিক্ষত। করোনার প্রাদুর্ভাবে বিশ্ববাসী অসহায় হয়ে পড়েছে। বিশ্ব জুড়ে বেকারত্ব, অর্থনীতিতে ধস, লাশের মিছিল, ধনী দরিদ্রের বৈষম্য, খাদ্য সংকটের আশংকায় তটস্থ। করোনা সংকট আরো প্রলম্বিত হলে খাদ্য ও সামাজিক শৃঙ্খলা রক্ষা চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়াবে। এমনি পরিস্থিতিতে মধ্যবিত্তরা নিম্নবিত্তের সারিতে পৌঁছে যাবে গরীবরা অসহায় হয়ে পরবে। বাংলাদেশও নিকট ভবিষ্যতে খুব বাজে পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে চলেছে। আমাদের কঠিন খাদ্য সংকটের আশঙ্কা প্রকাশ করছি। কলকারখানার বন্ধ মানে উৎপাদন বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। প্রবাসীরা কাজ হারিয়ে দেশে ফিরে আসছে। পত্রিকার পাতায় দেখলাম শুধুমাত্র কুয়েতের আড়াই লক্ষ প্রবাসী শ্রমিক আতংক দিন কাটাচ্ছে। ইতিমধ্যেই প্রায় চল্লিশ শতাংশ গার্মেন্ট লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। কর্মক্ষম মানুষ কাজ হাড়িয়ে কর্মহীন হয়ে পরেছে। এককথায় বাংলাদেশ সহ গোটা বিশ্বের অর্থনীতি প্রায় ভেঙে পড়ছে। এই অর্থনৈতিক প্রতিকুলতা কাটিয়ে ওঠা আমাদের মতো উন্নয়নশীল দেশের জন্য খুব কঠিন হয়ে দাঁড়াবে। দেশের প্রতিটি মানুষ ভালো থাকলে দেশের উন্নয়ন অর্থনীতির চাকা সচল থাকবে। আমাদের সকলকে আগাম কর্মপন্থা নির্ধারণ করে এখনই পূর্বপ্রস্তুতি নিতে হবে।

এখন থেকেই অপচয় বন্ধ করুন, কিপটেমী করুন, অপ্রয়োজনীয় খরচ কমিয়ে দিন। এখনি সঞ্চয় শেষ করে ফেলবেন না যেন। ভবিষ্যতের ভালোর জন্য যথেচ্ছা খরচে কিপটেমি করুন। আয়ের উৎস খুঁজে বের করুন, জমানো অর্থ খরচে অধিক কৃচ্ছতা করুন। কাঁচামালের অভাবে ফ্যাক্টরিতে উৎপাদন না হলে টাকা খেয়ে জীবন বাঁচবে না! আপনার খাবারের মজুদ এখনই শেষ করে ফেলবেন না। সামনে হয়তোবা আরও কঠিন দিন ঘনিয়ে আসছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা মেনে বাড়ির আঙ্গিনা জুড়ে ফলের গাছ, সাকসবজি লাগান। এতো টুকু খালি জায়গাও অনাবাদি রাখা যাবে না। মোটেও খাবারের অপচয় করবেন না, এমনকি একটি দানা পরিমাণও না। পরিমিত খাওয়ার অভ্যাস করুন। এই আপদকালীন সময়ে বিলাসী অভ্যাস পরিহার করুন।

আপনি আমি সহ দেশের সকল মানুষ ভালো থাকলে দেশ ভালো থাকবে। উৎপাদনমুখী চিন্তা ও চেষ্টা করুন। ক্ষুদ্র শিল্প কারখানা বাড়িতে গড়ে তুলতে পারেন। অলস সময় না কাটিয়ে আয়ের উৎস খুঁজে বের করুন। আত্মবিশ্বাস নিয়ে সমস্যার মোকাবেলা করুন। আপনি একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি হলে পরিবারের সকল সদস্যদের জানান এবং সবাই কে নিয়ে সমস্যার মোকাবেলা করুন। পরিবারের সকল দায়িত্বের চাপ এককভাবে নিজের ওপর নিবেন না। অধিক দুশ্চিন্তা আপনার জীবনের শংকা দেখা দিতে পারে।
মহান আল্লাহর দরবারে কায়মনোবাক্যে সবার জন্য শান্তি, সুস্থতা ও দীর্ঘায়ু কামনা করছি।
লেখক
কলামিস্ট
শিক্ষক নেতা
মোঃ সাইদুল হাসান সেলিম


Categories