বরগুনা পৌর নির্বাচন: অভিযোগ ও ফেসবুকে সীমাবদ্ধ শাহাদাতের প্রচারণা।

প্রকাশিত: ৪:৩৩ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৪, ২০২১

জহিরুল হক, বরগুনা জেলা প্রতিনিধি:

বরগুনা পৌর নির্বাচন: অভিযোগ ও ফেসবুকে সীমাবদ্ধ শাহাদাতের প্রচারণা।

বরগুনা পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন না পেয়ে বিদ্রোহী হয়ে নির্বাচন করছেন বর্তমান পৌর মেয়র শাহাদাত হোসেন। নির্বাচন শুরু থেকেই তার অভিযোগের শেষ নেই। নানা দুর্নীতির কারণে আলোচিত-সমালোচিত মেয়র শাহাদৎ হোসেন এবার নির্বাচনে তাঁর মেয়ে মহসিনা মিতু কে দিয়ে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন। দুর্নীতির কারণে মেয়র শাহাদাত হোসেন পিছনে গিয়ে তার মেয়েকে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করাবেন এমন গুঞ্জন উঠলে তিনি ফেসবুক লাইভে এসে অভিযোগ করেছিলেন তার প্রাণের ঝুঁকি আছে তাই মেয়েকে দিয়ে মনোনয়ন দাখিল করেছেন।
বর্তমানেও শাহাদত প্রতিদিনই আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী কামরুল আহসান মহারাজ এর বিরুদ্ধে কোন না কোন অভিযোগ তুলছেন। নির্বাচনী মাঠে সুবিধা করতে না পেরে শাহাদাত হোসেন ফেসবুক লাইভে এসে কান্নাকাটি করে ভোটারদের সহমর্মিতা পেতে চান। তিনি অভিযোগ করেছেন তাকে প্রচারণার সুযোগ দেওয়া হচ্ছে না। কিন্তু বরগুনা পৌরসভা ঘুরে তারে অভিযোগের সত্যতা মেলেনি।
সাধারণ মানুষ বলছেন ভিন্ন কথা। বরগুনার আব্দুল কাদের সড়ক বাসিন্দা জাফর হোসেন বলেন, মেয়র শাহাদত ভোট চাইতে আসবে কোন লজ্জায়। ৩৫০ টাকার পানির মিটার বাবদ ৩৫০০ টাকা নিয়েছে । ১০ বছর আগে যার ৫০০ টাকা ট্যাক্স ছিল বর্তমানে তা ৫-৭ হাজার টাকা।
পশ্চিম আমতলা সড়ক বাসিন্দা মোঃ আল আমিন বলেন, শাহাদাত কথায় কথায় বলে উন্নয়ন করেছি, উন্নয়ন কী ওর বাপের টাকায় করছে। আপনারাই তো দেখেন, এক রাস্তা বছরে তিনবার করে। ২০ বছর আগে ১৫০০ টাকা বেতনে কেরানির চাকরি করতো। এখন হাজার হাজার কোটি টাকার মালিক এই টাকা পাইলো কই মেয়র শাহাদাত।
বরগুনা জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাবুদ্দিন শাবু বলেন, শাহাদাত তার দুর্নীতির কারণে ভোটারদের কাছে যেতে না পেরে আমাদের বিরুদ্ধে ফেসবুকে অপপ্রচার চালাচ্ছে। দল যদি তাকে প্রতিহত করতে চাইত তাহলে শাহাদতের মত মানুষের এমনকি ক্ষমতা আছে যে, সে বরগুনায় অবাধে নির্বাচন করে। আমরা শান্তিতে বিশ্বাসী। শাহাদাত দুই-চারটা ককটেল ফাটিয়ে বরগুনা কে অস্থিতিশীল করে ফায়দা লুটতে চেয়েছিল। তা পারেনি বলেই বিভিন্ন অভিযোগ করে জনগণের দয়া পেতে চাইছে।
বরগুনা জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম সরোয়ার টুকু বলেন, শুধু ফেসবুকে কান্নাকাটি নয় শাহাদাত এবার যত ফন্দিফিকির করুক কাজ হবে না। জনগণ তার থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। আমরা আওয়ামী পরিবার এক ও অভিন্ন। ৩০ তারিখে নৌকার বিজয় হবেই। আমরা রিটার্নিং অফিসার কে তার এই অভিযোগের সত্যতা প্রমাণ করতে বলেছি। শাহাদাত যদি অভিযোগ প্রমাণ করতে না পারে রিটার্নিং অফিসার কে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে।


Categories