প্রতিবন্ধী শিশু ধর্ষণ মামলার পলাতক প্রধান আসামিকে খুলনা থেকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব ৬।

প্রকাশিত: ৮:৪৮ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২৪, ২০২১
মোঃ মিজানুর রহমান খুলনা প্রতিনিধি

প্রতিবন্ধী শিশু ধর্ষণ মামলার পলাতক প্রধান আসামিকে খুলনা থেকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব ৬।

১। র‌্যাব তার প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে দুর্ধর্ষ অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, ছিনতাইকারী, প্রতারক, ও বিভিন্ন চাঞ্চল্যকর ঘটনার আসামী, গ্রেফতারসহ বিভিন্ন অপরাধের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহন করে জনগনের বিশ্বাস ও আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে
২। এরই ধারাবাহিকতায় র‌্যাব-৬ (স্পেশাল কোম্পানি) খুলানার একটি  চৌকশ আভিযানিক দল গোয়েন্দা তথ্যের মাধ্যমে জানতে পারে যে,  পিরোজপুর জেলার ভান্ডারিয়া উপজেলার ইকড়ি গ্রামের এক প্রতিবন্ধী শিশুটির মা অন্যত্র বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হলে প্রতিবন্ধী শিশুটি পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া উপজেলার পূর্ব পশারীবুনিয়া গ্রামের মোঃ মামুন মুন্সির বাড়িতে ৬ মাস পূর্বে গৃহকর্মীর কাজ নেয়।গৃহকর্মীর কাজ করতে গিয়ে গৃহকর্তার লালসার স্বীকার হয়ে প্রতিবন্ধী শিশু (১৪) টি অন্তঃসত্তা হয়ে পরে। গৃহকর্তার স্ত্রী শিশুটির শারীরিক অবস্থার পরিবর্তন বুঝতে পেরে, প্রতিবন্ধী শিশুটিকে খুলনার অজ্ঞাতনামা একটি ক্লিনিকে এনে গর্ভপাত করায়। প্রতিবন্ধী শিশুটি অসুস্থ হয়ে পড়লে গত ১৬ ডিসেম্বর ২০২১ তারিখ ভান্ডারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। এই ঘটনায় শিশুটির ফুফু ৩ জনকে আসামী করে ভান্ডারিয়া থানায় মামলা করে। যার মামলা নং-০৭, তারিখঃ ১৭/১২/২০২১ খ্রীঃ, ধারাঃ নারী ও শিশু  নির্যাতন দমন আইন ২০০০ (সংশোধনী ২০০৩) এর ৯(১)/৩০ তৎসহ ৩১৩ পনোল কোড। উক্ত মামলাটি র‌্যাব-৬ (স্পেশাল কোম্পানি) খুলানার একটি  চৌকশ আভিযানিক দল ছায়া তদন্ত শুরু করে এবং এজাহারনামীয় পলাতক আসামীদেরকে গ্রেফতার করতে গোয়েন্দা তৎপরতা অব্যাহত রাখে।
৩। এরই প্রেক্ষিতে ২৩ ডিসেম্বর ২০২১ তারিখ ২২.০০ ঘটিকার সময় র‌্যাব-৬ (স্পেশাল কোম্পানি) খুলনা এর একটি চৌকশ আভিযানিক দল গোয়েন্দা তথ্যের মাধ্যমে কেএমপি খুলনার লবনচরা এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে চাঞ্চল্যকর প্রতিবন্ধী শিশু ধর্ষন ও গর্ভপাত করানো মামলার এজাহারনামীয় প্রধান পলাতক আসামী ১। মোঃ মামুন মুন্সি (৩৮), পিতা- মৃত সুলতান আহম্মেদ (মাষ্টার), সাং- পর্ব পশারীবুনিয়া ওয়ার্ড নং ০৮, থানা- ভান্ডারিয়া জেলা- পিরোজপুরকে গ্রেফতার করে।
৪। গ্রেফতারকৃত আসামীকে পিরোজপুর জেলার ভান্ডারিয়া থানায় হস্তান্তর কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন।

Categories