পেশাগত দাবির চেয়ে নেতৃত্ব নিয়ে ব্যস্ত নেতারা ভাল নেই বেসরকারি শিক্ষকরা

প্রকাশিত: ৯:৫৮ পূর্বাহ্ণ, জুন ৩০, ২০২০

নানা সমস্যায় দিশেহারা দেশের বেসরকারি সর্বস্তরের থেকে শিক্ষকরা। পেশাগত এসব সমস্যা সমাধানে কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারছে না শিক্ষক সংগঠনগুলো। প্রায় দেড়শ’ অধিক শিক্ষক সংগঠন রয়েছে দেশে। দেখা গেছে, অনেক সংগঠনের নেতারা পেশাগত দাবি আদায়ের চেয়ে নিজ নিজ পদ-পদবি, চাওয়া-পাওয়া পূরণেই ব্যস্ত থাকছেন। ফলে বিভিন্ন শিক্ষক সংগঠনের প্রতি সাধারণ শিক্ষকদের কমছে সমর্থন। পক্ষান্তরে নিজেদের মধ্যে দলাদলি, কোন্দল, স্বার্থের দ্বন্দ্বে ভেঙে যাচ্ছে বিভিন্ন সংগঠন ও জোট। গড়ে তোলা হচ্ছে নতুন নতুন সংগঠন। এক সময়ের বড় শিক্ষক সংগঠনগুলোর সবই এখন একই নামে অথবা ভিন্ন নামে খণ্ড খণ্ড আকার ধারণ করেছে। ফলে সাংগঠনিকভাবে শক্তি হারিয়েছে বেশিরভাগই। দাবি আদায়ে মাঠের আন্দোলনে কার্যত গুরুত্ব হারিয়েছে তারা। কোনো কোনো সংগঠনের মূল নেতা মারা যাওয়ায় তার অনুসারীরা হয়ে পড়েছেন বিভক্ত। আবার কোনো কোনো সংগঠনে নেতারা বহু আগে পেশা থেকে অবসর নেওয়ার পর এখন বয়োবৃদ্ধ ও অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। এসব সংগঠনও চলছে ঢিমেতালে। এই ভাবে সংগঠন বৃদ্ধি পেলে কি ভাবে জাতীয়করণের জন্য আন্দোলন করবে। ‘বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি’ নামে দেশে এ মুহূর্তে অন্তত ১৬ টি সংগঠন রয়েছে। তার মধ্যে বেশির ভাগেই নিষ্ফ্ক্রিয়প্রায়। বেশিরভাগ জেলায় এসব সংগঠনের কোনো কমিটি নেই। নেই কোনো কার্যক্রমও। প্রখ্যাত শিক্ষক নেতা অধ্যক্ষ কামরুজ্জামানের মৃত্যুর পর তার নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি নামে সংগঠনটির মাঝে বিভক্তি দেখা দেয় এবং একই নামে বিভিন্ন সময়ে একাধিক সংগঠন গড়ে ওঠে। তার নেতৃত্বাধীন গ্রুপটি এখনও বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি নামেই পরিচালিত হচ্ছে।
লেখক
আবু জাহিদ রাজু,
সহকারি শিক্ষক
আজগরা হাজী আলতাপ আলী হাই স্কুল এন্ড কলেজ। লাকসাম


Categories