নয়নাভিরাম  পর্যটন কেন্দ্র হতে যাচ্ছে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়। 

প্রকাশিত: ১১:৪২ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৩, ২০২১
মোঃ সাদেকুল ইসলাম ভূঁইয়া, বিজয়নগর উপজেলা প্রতিনিধি, ব্রাহ্মণবাড়িয়া।

নয়নাভিরাম  পর্যটন কেন্দ্র হতে যাচ্ছে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়। 

অচিরেই পর্যটকদের হাতছানি দিয়ে ডাকবে ব্রাহ্মণবাড়িয়া বিজয়নগর উপজেলার কালছড়া গ্রাম।
ছোট ছোট পাহাড় আর সবুজের অপরূপ সৌন্দর্যের লিলাভূমি,  বহু দিন যাবত এলাকাটি চা বাগান এলাকা হিসেবে পরিচিত ছিল।
মহান মুক্তিযুদ্ধ বাংলাদেশের ইতিহাসে এক গৌরবউজ্জ্বল অধ্যায়। মুক্তিযুদ্ধে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বিজয়নগর উপজেলা তাৎপর্যপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এ উপজেলায় ১৯৭১ সালের মহান স্বাধীনতা যুদ্ধকালীন বিভিন্ন সময়ে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধাগণের সাথে পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীর সম্মুখ যুদ্ধ সংঘটিত হয়েছে।
 মহান মুক্তিযুদ্ধের বহু স্মৃতি বিজড়িত ঘটনাস্থল এ অঞ্চলে অবস্থিত। এখানে রয়েছে সম্মুখ যুদ্ধক্ষেত্রসহ বর্বর পাক হানাদার বাহিনী কর্তৃক নৃশংসভাবে বীর মুক্তিযোদ্ধাসহ নিরীহ মানুষ কে হত্যার স্মৃতি বহনকারী অসংখ্য গণকবর। এসকল ঘটনাবহুল ইতিহাস এবং স্থান দেশি-বিদেশি পর্যটকদের ব্যপকভাবে আকৃষ্ট করে, যা ডার্ক ট্যুরিজম নামে বিশ্বব্যাপী পরিচিত।
বিজয়নগর উপজেলার কালাছড়া হরিহর টি এস্টেট সংলগ্ন এলাকাটি মহান মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিবিজড়িত এমনই একটি অঞ্চল যা ডার্ক ট্যুরিজম এর অন্যতম স্থান হিসেবে  পরিণত হতে পারে। ডার্ক ট্যুরিজমের সম্ভাবনার কথা বিবেচনা করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য এবং বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা জনাব র. আ. ম. উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এ অঞ্চলে একটি পর্যটন কেন্দ্র গড়ে তোলার আগ্রহ প্রকাশ করছেন বহু দিন ধরে। এ এখন বাস্তবায়নের অপেক্ষায়।
মহান মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত এ এলাকায় আগত দর্শনার্থীদের জন্য বঙ্গবন্ধু কর্ণার, মহান মুক্তিযুদ্ধের ম্যুরাল, দর্শনার্থীদের জন্য বিশ্রামাগার, ক্যাফেটোরিয়া ও শৌচাগারসহ পর্যটন কেন্দ্র স্থাপন করার লক্ষ্যে বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড কর্তৃক উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। এ লক্ষ্যে মাননীয় এমপি মহোদয়ের আমন্ত্রণে বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের অতিরিক্ত সচিব জনাব জাবেদ আহমেদ ২১ জানুয়ারি ২০২১ তারিখে বিজয়নগর উপজেলার বিষ্ণপুর ইউনিয়নের কালাছড়া গ্রাম পরিদর্শন করেন।
পরিদর্শন শেষে উপস্থিত সাংবাদিকদের উদ্দেশে দেয়া বক্তব্যে তিনি বলেন- উক্ত অঞ্চলে ডার্ক ট্যুরিজমের পাশাপাশি রুরাল ট্যুরিজম বিকাশের উজ্জ্বল সম্ভাবনা রয়েছে।জেলা প্রশাসক মহোদয়ের নির্দেশনায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার, বিজয়নগর এর তত্বাবধানে জনপ্রতিনিধি ও স্হানীয় জনসাধারণ এর সহযোগিতায় এ প্রকল্প দ্রুত বাস্তবায়িত হবে।
এসময় বিজয়নগর উপজেলার রুপকার মাননীয় এমপি যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা জনাব র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী, উপজেলা নির্বাহি অফিসার জনাব কে.এম. ইয়াসির আরাফাত, সহকারী কমিশনার (ভূমি) জনাব মো: মাহবুবুর রহমান, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা জনাব শাহীনুর জাহান, স্হানীয় জনপ্রতিনিধি, বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Categories