নিজের কিডনি উপহার দিয়েও ভাইয়ের জীবন বাঁচাতে যুদ্ধ।

প্রকাশিত: ১০:৩৭ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ৯, ২০২০

সাইফুল ইসলাম, শ্রীমঙ্গল,মৌলভীবাজাঃ ভাইয়ের প্রতি অগাধ ভালোবাসায় জীবনের মায়া তুচ্ছ করে নিজের একটি কিডনি দিয়ে দেওয়ার অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে চলেছেন মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার ছয়ফুল হোসেন (২৬) নামের এক যুবক। জটিল কিডনীরোগে আক্রান্ত বড় ভাইকে বাঁচাতে নিজের একটি কিডনি দান করছেন তিনি। সব কিছু ঠিক থাকলে আগামী এক মাসের মধ্যে কিডনি প্রতিস্থাপন সম্পন্ন হবে বলে জানিয়েছেন ছয়ফুল হোসেনের বড় ভাই মিলাদ হোসেন।

জানা গেছে, মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার দক্ষিণভাগ উত্তর (কাঠালতলী) ইউনিয়নের দক্ষিণ মুছেগুল গ্রামের বাসিন্দা বদরুল ইসলাম কয়েক বছর ধরে দুবাই প্রবাসী। প্রায় ৬ মাস আগে হঠাৎ শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে সেখানকার চিকিৎসকের শরণাপন্ন হন তিনি। পরীক্ষা নিরীক্ষার পর চিকিৎসকেরা জানান তাঁর দুটি কিডনি অকেজো হয়ে গেছে বলে । এই অবস্থায় বদরুল দেশে চলে আসলে ডায়ালাইসিস সহ অন্যান্য চিকিৎসা চলতে থাকে। একসময় চিকিৎসকরা জানান দ্রুত একটি কিডনি প্রতিস্থাপন করতে না পারলে তাকে বাঁচানো যাবে না। বদরুলের এমন দুসংবাদে দিশেহারা হয়ে পড়েন তার পরিবার। কোথায় পাবে কিডনি। কে দিবে তাঁকে একটা কিডনি। এমন হতাশার মাঝেই বদরুলের আপন ছোট ভাই ছয়ফুল এগিয়ে আসেন। চিকিৎসকদের জানান, তিনি কিডনি দিতে ইচ্ছুক। চিকিৎসকেরা ‘ছয়ফুলের সব মেডিকেল পরীক্ষা করেন। তাতে দেখা যায়, তিনি কিডনি দানে সক্ষম।

অপরদিকে কিডনী পাওয়া গেলেও দুশ্চিন্তার কালো মেঘ যেনো সরেনি। নতুন কিডনি প্রতিস্থাপনে ২০-২৫ লক্ষ টাকার প্রয়োজন। কিন্তু এত টাকা কোথায় পাবে বদরুলের পরিবার! ইতিমধ্যে বদরুলের চিকিৎসায় তার পরিবার নিজেদের সর্বোচ্চটা ঢেলে দিয়েছে।এখন তাদের পক্ষে এতো টাকা যোগাড় করা সম্ভব নয়।

নিজেদের সবটুকু বিলিয়ে দিয়ে যখন নিরুপায় বদরুলের পরিবার তখন সবার পরামর্শে বাধ্য হয়ে সমাজের বিত্তবানদের কাছে সহযোগীতা চান বদরুল ইসলামের বড় ভাই মিলাদ হোসেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইয়ের জন্য সাহায্য চেয়ে একটা ভিডিও বার্তা দিয়ে পোষ্ট করেন। এরপর দেশে বিদেশে অবস্থানরত নেটিজেনরা ভিডিওটি শেয়ার করেন।ব্যাপক শেয়ারের ফলে ভাইরাল হয় মানবিক আবেদনের ভিডিওটি। দেশে বিদেশের অনেকেই সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে দেন।


Categories