নারী উদ্যোক্তা হিসেবে সারাদেশে আলো ছড়াচ্ছেন সোহানা ও সাবিহা

নিজস্ব নিজস্ব

প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ২:২৮ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৩১, ২০২০
মাসুম বিল্লাহ:
 নবাব ফয়জুন্নেছা এবং বেগম রোকেয়ার কথা আমরা পাঠ্য  বইয়ে পড়েছি।পিছিয়ে পড়া নারী সমাজ কে এগিয়ে নিতে এ দেশে যাদের অবদান ইতিহাসে আজও স্বর্নাক্ষরে লেখা রয়েছে। যারা পুরুষ নিয়ন্ত্রিত এ সমাজ কে দেখিয়ে দিয়ে গেছেন নারীরা সুযোগ পেলে দেশ এবং সমাজের জন্য কতটুকু অবদান রাখতে পারে।সেই মহান দুই নারীর পথ অনুসরণ করে বিভিন্ন সময়ে দেশের রাজনীতি,অর্থনীতি সহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ প্রেক্ষাপটে নারীরা বলিষ্ঠ নেতৃত্ব দিয়েছেন। বর্তমান সময়েও পুরুষদের পাশাপাশি নারীরাও সমানতালে নেতৃত্ব দিয়ে যাচ্ছেন।গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মানে যে সকল সেক্টর অবদান রেখে চলেছে তারমধ্যে অন্যতম হলো নারী উদ্যোক্তা।নারী উদ্যোক্তা হিসেবে ইতোমধ্যে যারা সারাদেশে আলো ছড়িয়েছেন তাদের মধ্যে অন্যতম হলো কুষ্টিয়া জেলার কুমারখালি উপজেলার মেয়ে সোহানা আফরোজ এবং গাজীপুর জেলার মেয়ে সাবিহা শিশির।এই দুইজনের অক্লান্ত পরিশ্রমে (Handicrafts of Bangladesh)-নামে অনলাইন ভিত্তিক একটি উদ্যোক্তা তৈরির প্লাটফর্ম গড়ে তুলেছেন।যেখানে সারাদেশের অসংখ্য অগনীত উদ্যোক্তাদের সমস্যা এবং সম্ভাবনার কথা তুলে ধরা হচ্ছে। (Handicrafts of Bangladesh)-গ্রুপ টির প্রশংসা ইতোমধ্যে সারাদেশে ছড়িয়ে পড়েছে।(Handicrafts of Bangladesh)-এর স্বপ্নদ্রষ্টা সোহানা আফরোজ এর কাছ থেকে গ্রুপের কার্যক্রম এবং ভবিষ্যত পরিকল্পনা সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন,সারা বাংলাদেশ থেকে আগামী ২০২৫ সালের মধ্যে নূন্যতম ১ হাজার উদ্যোক্তা তৈরি করা এবং নিজের অর্থনৈতিক স্বাবলম্বী অর্জনের পাশাপাশি দেশের অর্থনীতিতে বিশেষ অবদান রাখা।তিনি আরো বলেন,দেশের শিক্ষিত বেকার তরুন-তরুনীদের কে আমাদের গ্রুপের মাধ্যমে চাকরির ব্যবস্হা করাও অন্যতম লক্ষ্য।
(Handicrafts of Bangladesh)-এর অন্যতম স্বপ্ন সারথী এবং গ্রুপের এডমিন সাবিহা শিশির বলেন,আমরা দেশীয় পন্য পাট,জামদানী, তাত,নকশীকাঁথা, শুটকি,খাটি সরিষার তৈল,মধু,খাটি ঘি নিয়ে কাজ করে যাচ্ছি।গ্রুপের মাধ্যমে  আমাদের দেশীয় পন্য আন্তর্জাতিক বাজারে রিপ্রেজেন্ট করার ইচ্ছা পোষন করেন। তিনি আরো বলেন, আমাদের এই গ্রুপের কার্যক্রম পরিচালনা করা ও দিকনির্দেশনা দেওয়ার জন্য প্রবীণ মেধাবী একটি টিম রয়েছে। যাদের অনুপ্রেরণায় আমাদের পথচলা। উল্লেখ্য,২০১৭ সাল থেকে (Handicrafts of Bangladesh)-এর যাত্রা শুরু হয়।