নতুন অস্ত্র নিয়ে হাজির হচ্ছেন মুস্তাফিজ!

প্রকাশিত: ২:১২ অপরাহ্ণ, জুন ২৪, ২০২০

ভারতের বিপক্ষে পাঁচ বছর আগে ২০১৫ সালের জুনে মুস্তাফিজুর রহমানের ওয়ানডে অভিষেক হয়েছিল। মিরপুরে অনুষ্ঠিত সেই ম্যাচে অভিষেকেই পাঁচ উইকেট নিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সদর্পে পা রাখেন তিনি। এরপর বেশ কিছু দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের মাধ্যমে হয়ে ওঠেন জাতীয় দলের অবিচ্ছেদ্য অংশ। কিন্তু দীর্ঘদিন ধরেই তার বোলিংয়ের ধার কমে এসেছে। তাই এবার নতুন অস্ত্র নিয়ে হাজির হচ্ছেন তিনি।

বর্তমানে আক্রমণের ধার বাড়াতে বল কীভাবে সুইং করবেন তা শেখার চেষ্টা করছেন তিনি। এ ব্যাপারে এক ওয়েবসাইটে দেওয়া সাক্ষাৎকারে মুস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘আমি বলটি কীভাবে সুইং করব তা নিয়ে কাজ করছি। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজে আমি ম্যাচের প্রথম দিকে বল করার চেষ্টা করছিলাম। কারণ যদি প্রথম দিকে বল করে উইকেট পাই তবে আমার দলের উপকার হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘মাশরাফি ভাই চলে গেলে কাউকে সেই জায়গা নিতে হবে। সেই দায়িত্ব নিতে প্রস্তুত হওয়ার জন্য আমি সুইং এবং বোলিংয়ে ভ্যারিয়েশন আনার ব্যাপারে কাজ করছি। যদি আমি প্রথম পাঁচ ওভারের মাঝে ঠিকঠাক উইকেট ফেলতে পারি তবে আমার দল সুবিধা পাবে। ইনসুইং আয়ত্তের দিকে আমি বিশেষভাবে মনোনিবেশ করেছি।’

জাতীয় দলের হয়ে অভিষেকেই আলো ছড়িয়েছিলেন বাঁ-হাতি পেসার মুস্তাফিজুর রহমান। কাটার, সেস্নায়ার, দ্রম্নতগতির ইয়র্কারের মতো বৈচিত্র্যপূর্ণ বোলিংয়ের কারণে দ্রম্নতই টাইগারদের প্রধান বোলার হয়ে উঠেছিলেন তিনি। ব্যাটসম্যানদের ত্রাসরূপে আবির্ভূত হয়ে এই পেসার কাটার মাস্টার নামে খ্যাতি পেয়েছিলেন। ‘দ্য ফিজ’ নামে পরিচিত এই পেসার মনে করেন, টেস্ট ক্রিকেটে বোলাররা ভালো করার জন্য বারবার সুযোগ পায়।

ঝলমলে অভিষেকের পর অনেকেই আশা করেছিলেন তিন ফরম্যাটেই দলকে বল হাতে নেতৃত্ব দেবেন মুস্তাফিজ। কিন্তু সাদা বলের ক্রিকেটে সাফল্য পেলেও লাল বলের ক্রিকেটে খুব একটা সাফল্য পাননি তিনি। তবে লাল বলের ক্রিকেটেই ভালো করা সহজ বলে মনে করেন কাটার মাস্টার।

মুস্তাফিজ বলেন, ‘টেস্টে সব সময়ই বোলারদের জন্য ভালো করার সুযোগ থাকে। একটি স্পেল খারাপ হলেও আপনি আবার বল করার সুযোগ পাবেন। যদি একটি স্পেল খারাপ হয় তবে আপনি অন্য স্পেলে ভালো করার সুযোগ পাবেন। উদাহরণস্বরূপ বলা যায়, এক স্পেলে আপনি পাঁচ ওভারে ৫০ রান দিলেও অন্য স্পেলে পাঁচ ওভারে পাঁচ রান দিয়ে তিনটি উইকেট নিতে পারবেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘সাদা বলে আপনার এই সুযোগ নেই। সাদা বলের ক্রিকেটে আপনি নয় ওভার ভালো বোলিং করার পর যদি একটি ওভার বাজে বল করেন তবে দলের উপর এর অনেক প্রভাব পড়ে।’


Categories