নওগাঁয় আদিবাসীদের মহা-শ্মশান দখলের চেষ্টা!

প্রকাশিত: ৮:৩৯ অপরাহ্ণ, জুলাই ২৪, ২০২০

অহিদুল ইসলাম, নওগাঁ।।

নওগাঁর পোরশায় ভূমি দস্যু কর্তৃক আদিবাসীদের শতশত বছরের পুতারন মহা-শ্মশান দখল চেষ্টা করতে ব্যর্থ হয়ে আদিবাসিদের বিভিন্ন হুমকি দেওয়ায় অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ দায়েরের দুই দিন পার হলেও পুলিশ কাউকে করতে পারেনি। বৃহস্পতিবার দুপূরে উপজেলার গাংগুরিয়া ইউনিয়নের সরাইগাছী গ্রামের মহা-শ্মশানে এই ঘটনাটি ঘটেছে।

অভিযোগে সূত্রে জানা যায়, উপজেলা সরাইগাছী গ্রামের পাশে আদিবাসিদের তিন বিঘা জমির উপর একটি শতশত বছরের পুরাতন মহা-শ্মশান রয়েছে। সেখানে আদিবাসিরা মৃতদেহ সৎকার করে আসছেন। স্থানীয় কতিপয় ভূমি দস্যুরা কিছু দিন আগে থেকে হঠাৎ করে তাদের সম্পত্তি দাবি করে ওই জায়গাটি দখলের চেষ্টা করে আসছেন। এমতাবস্তায় বৃহস্পতিবার দুপূর ১২টার দিকে ভুমিদস্যু হারুন অর রশিদের নেতৃত্বে ১২/১৪ জন লাঠিসোটাসহ দেশীয় অস্ত্র ও শ্মাশানের জায়গা দখলের চেষ্টা করেন। এ সময় স্থানীয় আদিবাসির লোকজন এগিয়ে এসে বাধা দিলে তাদেরকে ভয়ভীতি দেখিয়ে জোর করেই জায়গা দখল করার চেষ্টা চালান হারুন অর রশিদগং। তবে আদিবাসীদের বাধার মূখে ভূমিদস্যুরা আদিবাসীদের হত্যা ও উচ্ছেদ করে শ্মশান জোরপূর্বক দখল করার হুমকি দিয়ে চলে যান। এই ঘটনায় গ্রামের কয়েকশ’ আদিবাসি মানুষেরা চরম নিরাপত্তাহীনতা ও আতংকের মধ্যে রয়েছে।

এই ঘটনায় সরাইগাছী গ্রামের আদিবাসিদের পক্ষে ভাদুয়া হাঁসদা বাদি হয়ে বৃহস্পতিবার বিকেলেই ভূমিদস্যু হারুন অর রশিদ, ইসমাইল হোসেন, আদুল হোসেন সহ মোট ৮ জনের নামে পোরশা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। ভাদুয়া হাঁসদা, আইচন পাহান সহ আদিবাসিরা জানান, ভূমিদস্যু হারুন অর রশিদগং দীর্ঘ দিন থেকে তাদের শতশত বছরের পুরাতন ওই শ্মশান দখলের পায়তারা ও বিভিন্ন হুমকি দিয়ে আসছেন। বৃহস্পতিবারের ঘটনায় থানায় একটি অভিযোগ দিলেও পুলিশ শুক্রবার দুপূর পর্যন্ত ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেননি এবং আসামীদের গ্রেফতারের কোন তৎপরতা দেয়া যায়নি। এতে আমরা চরম নিরাপত্তাহীনতা ও আতংকের মধ্যে রয়েছি।

আদিবাসি ছাত্র পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি নুকূল পাহান জানান, আদিবাসিদের সম্পত্তি ধীরে ধীরে বিভিন্ন মানুষ দখল করে নিচ্ছে ও চেষ্টা করছে। এটিও তারই অংশ। পোরশায় আদিবাসিদের শ্মশান ভূমিদস্যুদের হাত থেকে রক্ষা করতে প্রশাসনসহ সকলের সহযোগিতার পাশাপাশি দ্রুত আসামীদের গ্রেফতার করার দাবি জানান।
হারুন অর রশিদগংদের সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব না হওয়ায় কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আবু বক্কর সিদ্দিক জানান, ৩ বিঘারও বেশি সম্পত্তির উপর ওই শ্মশানের আদিবাসিরা মৃতদেহ সৎকার করে আসছিলেন। তবে বৃহস্পতিবারে দখলের চেষ্টা ও হুমকির মতো কোন ঘটনা ঘটেছে কি না সে বিষয়ে তার কিছু জানা নেই।
পোরশা থানার ওসি শফিউল আজন খান জানান, মহা-শ্মশান দখলের চেষ্টা ও হুমকির ঘটনায় হারুন অর রশিদগংসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। তবে পলাতক থাকায় কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি। ওসি আরো জানান, ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করে দ্রুত প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


Categories