নওগাঁয় যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূকে নির্যাতন, শ্বশুর-শাশুড়ি গ্রেফতার

প্রকাশিত: ৭:৩৯ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১০, ২০২২
অহিদুল ইসলাম, স্টাফ রিপোর্টারঃ নওগাঁ সদর উপজেলার কীর্তিপুর ইউনিয়নের জালম গ্রামের বসবাসরত মর্জিনার মেয়ে ববিতা বানুর প্রায় এক বছর আগে বিয়ে হয় মান্দা উপজেলার গণেশপুর, সতিহাটের শামীম উদ্দীন মোল্লার ছেলে জাহিদ আলির সাথে। ববিতা বানুর বাবা গরিব হওয়ায় যৌতুকের কিছু টাকা বাকি রাখেন। এটাই বাধে বিপত্তি শুরু হয় নির্যাতন। সর্বশেষ  গত ৬ এপ্রিল ২২ তারিখ হতে পরদিন দুপুর ২টা পর্যন্ত ১লক্ষ টাকা যৌতুকের দাবি করে মারপিট শুরু করে জাহিদ  তার মা-বাবার প্ররোচনায়।
যৌতুক পরিশোধ করতে না পারায় বিয়ের পর অধিকাংশ সময় তাকে বাপের বাড়ীতেই থাকতে হয়েছে। সর্বশেষ ৩০হাজার টাকা পণ দিয়ে স্বামীর বাড়িতে পাঠানো হলে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে তার উপর চালানো হয় অমানুষিক নির্যাতন ও মধ্যযুগীয় কায়দায় পৈশাচিক নির্যাতন। সেই ঘটনার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। নড়ে চড়ে বসে প্রশাসন। মেয়েটি নওগাঁ সদর হাসপাতালে জরুরি বিভাগে ভর্তি আছেন।
সত্যতা নিশ্চিত করে মান্দা থানার অফিসার ইনচার্জ শাহিনুর রহমান বলেন, এঘটনায় মান্দা থানা পুলিশ নারী ও শিশু নির্যাতন মামলায় ২নং আসামি জাহিদ এর মা হাজেরা বেগম (৫৫) ও ৩নং আসামি জাহিদ এর বাবা শামীম মোল্লা কে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরন করা হয়েছে ১ নং আসামী জাহিদ মোল্লা পলাতক রয়েছে। তাকেও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

Categories