তৃতীয় ধাপে পৌরসভা নির্বাচন: বরগুনা ও পাথরঘাটায় জয়ী নৌকা।

প্রকাশিত: ৮:৪১ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৩১, ২০২১

জহিরুল হক- বরগুনা জেলা প্রতিনিধি।

তৃতীয় ধাপে পৌরসভা নির্বাচন: বরগুনা ও পাথরঘাটায় জয়ী নৌকা।

জহিরুল হক, বরগুনা জেলা প্রতিনিধিঃ শনিবার তৃতীয় ধাপে বরগুনা ও পাথরঘাটা পৌরসভায় কিছু বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়াই শেষ হয়েছে নির্বাচন। সকাল ৮টায় ভোট গ্রহণ শুরু হয়ে বিকাল ৪টায় ভোট গ্রহণ শেষ হয়েছে। পুরুষ ভোটারের চেয়ে মহিলা ভোটারের উপস্থিতি বেশি দেখা গেছে।

দুটি পৌরসভায়ই নৌকা মনোনিত প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। বরগুনা পৌরসভায় ২৬,০১২ জন ভোটারের মধ্যে ১৭,৯৭৮ জন ভোট দিয়েছেন। মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দিতা করে ৯ জন, কাউন্সিল পদে ৩৫ জন ও সংরক্ষিত নারী আসনে প্রতিদ্বন্দিতা করেন ১৪ জন। মেয়র পদে নৌকা প্রতিকের প্রার্থী জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও জেলা যুবলীগের সভাপতি এ্যাডভোকেট মোঃ কামরুল আহসান মহারাজ ৯ হাজার ৩৬৭ ভোট পেয়ে মেয়র নির্বাচিত হয়। তার নিকটতম বিদ্রোহী আওয়ামীলীগের স্বতন্ত্র প্রার্থী দুইবারের মেয়র মোঃ শাহাদাত হোসেন জগ প্রতিকে নির্বাচন করে ৬ হাজার ৬৩৬ ভোট পেয়ে হেরে যান। বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে নির্বাচন করায় তাকে পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদকের পদ থেকে বহিস্কার করা হয়েছে।

বরগুনা পৌরসভার মহিলা কাউন্সিল সংরক্ষিত আসনে ১,২,৩নং ওয়ার্ডে আনারস প্রতিক মমতাজ বেগম, ৪,৫,৬নং ওয়ার্ডে চশমা প্রতিকে মোসাঃ রাহিমা ও ৭,৮,৯নং ওয়ার্ডে সাবেক কাউন্সিল হোসনেয়ারা চম্পা জবা ফুল প্রতিক নিয়ে নির্বাচিত হন।

পৌর শহরের কাউন্সিল পদে ১নং ওয়ার্ডে উট পাখি প্রতিক নিয়ে তারেকুজ্জামান টিটু, ২নং ওয়ার্ডে উট পাখি প্রতিকে সাইদুর রহমান সজিব, ৩নং ওয়ার্ডে বর্তমান কাউন্সিল পানির বোতল প্রতিকে আল আমিন, ৪নং ওয়ার্ডে উট পাখি প্রতিকে মোঃ রমিজ উদ্দিন মোল্লা, ৫নং ওয়ার্ডে পানির বোতল প্রতিকে মোঃ জাহিদুল করিম বাবু, ৬নং ওয়ার্ডে পাঞ্জাবী প্রতিকে মোঃ কবিরুর রহমান, ৭নং ওয়ার্ডে বর্তমান কাউন্সিল ও জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পাঞ্জাবী প্রতিকে মোঃ রইসুল আলম রিপন, ৮নং ওয়ার্ডে টেবিল ল্যাম্প প্রতিকে মীর আরাফাত জামান তুষার, ৯নং ওয়ার্ডে উট পাখি প্রতিকে মোঃ ফারুক সিকদার বিজয়ী হন।

নির্বাচন চলাকালীন দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকার বরগুনা (দক্ষিন) প্রতিনিধি মইনুল আবেদীন খান সুমনের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে পর্যবেক্ষক কার্ড ছিড়ে ফেলেন এবং তাকে ভোট কেন্দ্রে পুলিশের সামনে লাঞ্চিত করেন আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী দুইবারের মেয়র মোঃ শাহাদাত হোসেন (জগ প্রতিক)। এ ঘটনায় বরগুনা সাংবাদিক সমাজের মধ্যে চরম ক্ষোপ বিরাজ করছে। এছাড়াও জাল ভোট দিতে গিয়ে ৬জন আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে আটক রয়েছেন।

এদিকে পাথরঘাটা পৌরসভায় ৯টি কেন্দ্রে ১৪,১৪৬ জন ভোটার। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ৬,৯৬৭ জন মহিলা ভোটার ৭,১৭৯ জন। মেয়র পদে ০৫ জন, সংরক্ষিত নারী কাউন্সিল ১৫ ও পুরুষ কাউন্সিল ৩৫ জন প্রতিদ্বন্দিতা করেন। মেয়র পদে নৌকা প্রতিকের প্রার্থী আনোয়ার আকন ৬ হাজার ৬৭ ভোট পেয়ে মেয়র নির্বাচিত হয়। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দি প্রার্থী স্বতন্ত্র (আ’লীগ বিদ্রোহী) পাথরঘাটা উপজেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি মাহাবুবুর রহমান খান মোবাইল ফোন প্রতিকে পেয়েছেন ২ হাজার ২৩২ ভোট। এছাড়া ১,২,৩নং ওয়ার্ডে ফরিদা ইয়াসমিন, ৪,৫,৬নং ওয়ার্ডে মোসাঃ কচি, ৭,৮,৯নং ওয়ার্ডে চামেলী বেগম মহিলা কাউন্সিল নির্বাচিত হন। পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডে জহিরুল হক চিনু, ২নং ওয়ার্ডে রুকুনুজ্জামান রুকু, ৩নং ওয়ার্ডে মিল্লাত হোসেন, ৪নং ওয়ার্ডে মশিউর রহমান, ৫নং ওয়ার্ডে জামাল হোসেন, ৬নং ওয়ার্ডে মোঃ সুমন, ৭নং ওয়ার্ডে মোজাফফার হোসেন বাবুল, ৮নং ওয়ার্ডে রফিকুল ইসলাম কাকন, ৯নং ওয়ার্ডে বুলবুলি কাউন্সিল পদে নির্বাচিত হন। নির্বাচন চলাকালীন সময়ে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমান সোহেলের নারিকেল গাছ প্রতিকে ৭, ৮, ৯নং ওয়ার্ডের কেন্দ্রে এজেন্ট ঢুকতে দেয়নি নৌকা সমর্থকরা। ৪নং ওয়ার্ডের এজেন্ট বের করে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে নৌকা প্রতিকের প্রার্থী আনোয়ার আকনের বিরুদ্ধে।

এছাড়াও স্বতন্ত্র প্রার্থী মাহাবুব খান (মোবাইল ফোন প্রতিক) অভিযোগ করে বলেন আমার এজেন্টদের কোন কেন্দ্রে ঢুকতে দেওয়া হয়নি।

এ বিষয়ে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা দিলীপ কুমার হাওলাদার সাংবাদিকদের বলেন বরগুনা ও পাথরঘাটা পৌরসভা দুটিতে আমরা অবাদ ও নিরাপক্ষে নির্বাচন সম্পান্ন করতে সফল হয়েছি। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আমাদের কাছে অভিযোগ করেননি কোন প্রার্থী।


Categories