টাইম স্কেল / উচ্চতর গ্রেডে বেতন কমায় মাদ্রাসা শিক্ষকদের ক্ষোভ।

প্রকাশিত: ৩:২৪ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৫, ২০২২
টাইম স্কেল / উচ্চতর গ্রেডে বেতন কমায় মাদ্রাসা শিক্ষকদের ক্ষোভ।

টাইম স্কেল, উচ্চতর গ্রেডে বেতন আগের চেয়ে বৃদ্ধি পাবে এটাই স্বাভাবিক নিয়ম। কিন্তু বিস্ময়কর হলেও সত্য যে, এমপিওভুক্ত মাদ্রাসার শিক্ষক কর্মচারীরা টাইম স্কেল নিলে বেতন বৃদ্ধির পরিবর্তে তাদের বেতন প্রাপ্ত বেতনের চেয়ে কমে যায়। বিষয়টি নিয়ে মাদ্রাসা শিক্ষকদের মধ্যে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে।
সরকারি চাকরিজীবীদের মত বেসরকারি শিক্ষকরাও বাৎসরিক ৫% হারে ইনক্রিমেন্ট পেয়ে থাকেন। ইতিমধ্যে অনেক শিক্ষক কর্মচারীরা চারটি ইনক্রিমেন্ট পেয়ে তারা যে কোডে বেতন পান তার পরবর্তী কোডকেও অতিক্রম করেছেন। অর্থাৎ তাদের বর্তমান আহরিত বেতন, পরবর্তী ধাপের বেতনের চেয়েও বেশি হয়ে গেছে। বর্তমানে কোনো শিক্ষক কর্মচারী যদি টাইম স্কেল বা উচ্চতর গ্রেড নেন তাহলে ঐ গ্রেড অনুযায়ী বেতন নির্ধারণ করলে তার বেতন আগের চেয়ে কমে যায়। এ ক্ষেত্রে স্কুল কলেজের নীতিমালায় স্পষ্ট বলা আছে, টাইম স্কেল/উচ্চতর গ্রেডে বেতন কখনো আহরিত বেতনের চেয়ে কম হবে না। বরং আহরিত বেতনের পরবর্তী ধাপ যেখানে হবে সেখানে গিয়ে তার বেতন নির্ধারিত (Fixation)  হবে। কিন্তু মাদ্রাসার এমপিও নীতিমালায় এভাবে Fixation করার কোনো বিধান না থাকায় উচ্চতর স্কেলে শিক্ষকদের বেতন কমে যাচ্ছে।
গত জুলাই মাসের এমপিওতে টাইম স্কেল নেয়া সকল শিক্ষকের বেতন কমে যাওয়ায় তার চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেছে। বঞ্চিত শিক্ষকরা অধিদপ্তরে যোগাযোগ করলে এ বিষয়ে কোন সদুত্তর পান নি। তারা আশা করেছিল পরবর্তী মাসের এমপিওতে হয়তো ঠিক হয়ে যাবে। কিন্তু আগষ্ট মাসের এমপিও প্রকাশিত হলে দেখা যায় তাদের বৈষম্য রয়েই গেছে। অধিকন্তু যারা নতুন করে টাইম স্কেল নিয়েছেন তাদের বেতনও পূর্বের মত কমে গেছে।
বিষয়টি নিয়ে চরম ক্ষোভ ও হতাশা প্রকাশ করেছেন মাদ্রাসার শিক্ষক কর্মচারীরা। তারা দ্রুত মাদ্রাসার নীতিমালা সংশোধনের দাবি জানিয়ে বলেছেন, স্কুল কলেজের এমপিও নীতিমালার মত মাদ্রাসার এমপিও নীতিমালায়ও যেন Fixation এর বিধান রাখা হয়।
বিষয়টির প্রতি উর্ধতন কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছি।
মুহাম্মদ জসিম উদ্দীন, প্রভাষক,
জিরাইল আজিজিয়া ফাজিল ডিগ্রি মাদ্রাসা, বাকেরগঞ্জ, বরিশাল।

Categories