জুলাইয়ের বেতন ঈদের পর আনন্দ নেই ৫ লক্ষ শিক্ষক কর্মচারীর ঘরে

প্রকাশিত: ৩:৩৬ অপরাহ্ণ, জুলাই ৩০, ২০২০

প্রায় পাচঁ লক্ষাধিক এমপিওভুক্ত শিক্ষক কর্মচারী মধ্যে ৮০-৯০% বেতনের উপর নির্ভরশীল অথচ এমপিওভুক্ত শিক্ষক কর্মচারীদের বহু প্রত্যাশিত আশা ছিল যে জুলাই মাসের এমপিওর বেতন-ভাতাদি তারা ঈদুল আযাহার এর আগেই উত্তোলন করতে পারবেন সে আশায় এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীর পথ চেয়ে ছিল । কিন্তু এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের ভাগ্যে জুটলো না ঈদের পরেই তারা তাদের বেতন-ভাতা উত্তোলন করতে পারবেন।

যেখানে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা জুলাই মাসের বেতন ভাতাদি জুলাই মাসে উত্তোলন করতে পারলেন। সেই এক দেশেই এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের ভাগ্যে জুলাই মাসের বেতন ভাতাদির জুলাই মাসে উত্তোলন করা কপালে জুটল না ।

এটা যেন একই দেশে দুই নীতি তে প্রথা চালু সিস্টেম আজও রয়ে গেল। সেই মান্ধাতার আমল থেকে আজও পর্যন্ত।
আর তাই এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের সেই পুরাতন নিয়মে তাদের বেতন-ভাতাদি উত্তোলন করতে হয়, আজ মানুষ গড়ার কারিগর আজ সামান্য বেতন-ভাতাদি উত্তোলনের জন্য পথ চেয়ে হাঁকা করতে হয়।

ঈদুল আযহার এর এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের ঈদুল আজহার ঈদ বোনাসের ভাতাদি আজও অনেক জায়গায় উত্তোলন করতে পারেনি। এটা বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের ভাগ্য পরম পরিহাস দুদিন পরেই ঈদুল আযহার কিন্তু অনেক জায়গায় দেখা গেছে যে ব্যাংক কর্মকর্তাদের গাফিলতির কারণেই আজও শিক্ষক কর্মচারীরা তাদের বেতন-ভাতা উত্তোলন করতে পারছে না ,তাহলে কিভাবে সেই সকল এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীর তাদের ছেলেমেয়েদের নিয়ে ঈদুল আযহার এর ঈদ উদযাপন করবে ।

পৃথিবীর মধ্যে অন্য কোন দেশে যেকোন পেশারর মধ্যে ২৫% উৎসব ভাতা দেওয়ার দূরের কথা, বাংলাদেশের মধ্যে চাকুরিজীবী মধ্যে নাই। শুধু আছে এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের বেলায়।

তারপরেও বিভিন্ন বৈষম্যের অবসান ঘটিয়ে শিক্ষক-কর্মচারী একই সূত্রে গাঁথা মালা হয়, মুজিব বর্ষে স্বাধীনতা সূবর্ণ জয়ান্তী দিকে অগ্রসর হচ্ছে তারা এক দফা এক দাবি জন্য জাতীয়করণ ।
মো : তোফায়েল সরকার,
যুগ্ম দপ্তর সম্পাদক, বাবেশিকফো কেন্দ্রীয় কমিটি।


Categories