“জুভেন্টাস ও রিয়াল মাদ্রিদ দুদলই ব্যাকফুটে-উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগে রিয়ালকে বিদায় করল ম্যান সিটি”

প্রকাশিত: ২:৪৯ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৮, ২০২০

জুভেন্টাস ও রিয়াল মাদ্রিদ দুদলই ব্যাকফুটে ,উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগে রিয়ালকে বিদায় করল ম্যান সিটি।

উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনালের ড্র বড় একটা রোমাঞ্চ তৈরি করেছিল। শেষ আটে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর সাবেক ও বর্তমান ক্লাবের মুখোমুখি হওয়ার রোমাঞ্চকর সম্ভাবনা জাগিয়ে তুলেছিল। তবে সম্ভাবনার চেয়েও কঠিন ছিল বাস্তবতা। শেষ ষোলোর প্রথম লেগ শেষে জুভেন্টাস ও রিয়াল মাদ্রিদ দুই দলই ব্যাকফুটে। স্বাভাবিকভাবেই নিজেদের ভাগ্য পাল্টাতে পারেনি দল দুটো।

কাল রাতে রোনালদোর জোড়া গোলের ওপর দাঁড়িয়ে অলিম্পিক লিওঁকে ২-১ গোলে হারিয়েছে জুভেন্টাস। নক আউট পর্ব দুই লেগ মিলিয়ে ড্র থাকে ২-২ গোলে। পরে অ্যাওয়ে গোলে বাজিমাত করে লিওঁ। তাতে কপাল পোড়ে জুভেন্টাসের। নক আউট পর্বের শুরুতেই টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে গেছে রোনালদোর বর্তমান দল। টিকে থাকতে পারেনি পর্তুগিজ যুবরাজের প্রাক্তন ক্লাবও।

শুক্রবার শেষ ষোলোর দ্বিতীয় লেগের অন্য ম্যাচে ম্যানচেস্টার সিটির কাছে ২-১ গোলে হেরেছে রিয়াল মাদ্রিদ। গত ফেব্রুয়ারিতে প্রথম লেগে ঘরের মাঠেও একই ব্যবধানে হেরেছিল জিনেদিন জিদানের দল। দুই লেগের সমণ্বিত ফল ৪-২তে এগিয়ে সিটিজেনরা উঠল কোয়ার্টার ফাইনালে। আগামী শনিবার সেমিফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে মুখোমুখি হবে ম্যানচেস্টার সিটি ও লিওঁ। রোনালদোকেও সাবেক ক্লাবের মুখোমুখি হওয়ার মতো বিব্রতকর অভিজ্ঞতায় যেতে হচ্ছে না।

zinedine zidane eden hazard real madrid

প্রথম লেগে ঘরের মাঠে ২-১ গোলে হেরেছে রিয়াল। দ্বিতীয় লেগে সিটির মাঠ ইতিহাদ স্টেডিয়ামে দুর্দান্ত কিছু করা ছাড়া বিকল্প ছিল না তাদের সামনে। রিয়াল আহামরি কিছু করতে পারেনি। বরং ম্যাচের শুরুতেই গোল হজম করে হারের আশঙ্কা জাগায় জিদানের দল। ম্যাচের বয়স দুই অংকে যাওয়ার আগেই সিটিকে উচ্ছ্বাসে ভাসান রহিম স্টার্লিং। সিটির জার্সিতে করেন নিজের শততম গোল।

রিয়াল মাদ্রিদ ফিরে আসতে খুব বেশি সময় নেয়নি। ২৮ মিনিটে করিম বেনজেমার গোলে সমতায় ফেরে টুর্নামেন্টের ইতিহাসে সবচেয়ে সফল দলটি। এরপর রুদ্ধধার স্টেডিয়ামে অনেকটা সময় কাটল গোলখরায়। খরা দূর করেন গ্যাব্রিয়েল জেসুস। ব্রাজিলিয়ান এই স্ট্রাইকারের গোলেই মূলত শেষ হয়ে যায় রিয়াল মাদ্রিদের স্বপ্ন। শেষ আটে যেতে হলে বাকি ২২ মিনিটে রিয়ালকে করতে হতো অন্তত দুই গোল!

যা অসম্ভবই ছিল। স্বাভাবিকভাবেই অলৌকিক কিছু ঘটাতে পারেননি জিদানের শিষ্যরা। তাতেই শেষ হলো একটা অধ্যায়ের। এই প্রথম টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিলেন কোচ জিদান। এক মৌসুম আগেই তার অধীনে চ্যাম্পিয়নস লিগে হ্যাটট্রিক ট্রফি জয়ের কীর্তি গড়েছিল রিয়াল মাদ্রিদ। অথচ সেই দলটাই কিনা পরপর দুই আসরে উঠতে পারল না সেমিফাইনালে!


Categories