ছাতকে ফখরুল হত্যার ৩ আসামী গ্রেফতার

প্রকাশিত: ৭:২০ অপরাহ্ণ, জুলাই ৯, ২০২০

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ
সুনামগঞ্জ ছাতকের চাঞ্চল্যকর রেলওয়ের নিরাপত্তা প্রহরী ফখরুল আলম হত্যা মামলার রহস্য উদঘাটনসহ আসামী গ্রেফতার করলেন এসআই হাবিবুর রহমান পিপিএম।

গত ২৯ জুন দিবাগত রাত ১০টার সময় ছাতক রেলওয়ের নিরাপত্তা প্রহরী ফখরুল আলম রেলওয়ের বিআর গোডাউনের নৈশ প্রহরী হিসাবে গোডাউনের মুল গেইট তালাবদ্ধ করে গোডাউনের ভিতরে ডিউটিতে কর্মরত ছিলেন। সকাল ০৬.০০ পর্যন্ত ডিউটি শেষে নিজ বাসায় ফেরার কথাছিল তার।কিন্ত কিছু অজ্ঞাত নামা দুষ্কৃতিকারী রাতে গোডাউনের তালা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে নৈশ প্রহরী ফখরুল আলমকে নির্মম ভাবে হত্যা করে,গোডাউন থেকে রেলওয়ের লৌহ জাতীয় বিভিন্ন মালামাল নিয়ে যায়।

পরদিন সকাল বেলা ডিউটি শেষে ফখরুল আলম
বাসায় ফেরত না যাওয়ায় তাহার সপ্তম শ্রেনীতে পড়ুয়া ছোট ছেলে বাবার খোঁজে গোডাউনে এসে বাবার রক্তাক্ত লাশ দেখতে পায়।যথারীতি সংবাদ পেয়ে সুনামগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার,অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ক্রাইম,ছাতক সার্কেল এএসপি,
ছাতক থানার অফিসার ইনচার্জ সহ ছাতক থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

সিলেট রেঞ্জের মান্যবর ডিআইজি মফিজ উদ্দিন আহম্মেদ পিপিএম সহ সুনামগঞ্জ জেলার সুযোগ্য
পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান বিপিএম এর দিক নির্দেশনায় এই চাঞ্চল্যকর ক্লু-লেস হত্যা মামলার দায়িত্ব পান ছাতক থানার এসআই হাবিবুর রহমান
পিপিএম।তিনি হত্যা মামলার রহস্য উদঘাটন ও ঘটনায় জড়িত আসামীদের গ্রেফতার করার
লক্ষ্যে অভিযান শুরু করেন।

ছাতক সার্কেল এএসপি বিল্লাল হোসেন সহ মামলার তদন্তকারী অফিসার এসআই হাবিবুর রহমান পিপিএম এর নেতৃত্বে ছাতক থানার অফিসার ফোর্সের সহায়তায় চাঞ্চল্যকর হত্যার ঘটনায় জড়িত ডাকাতি, ছিনতাই ও চুরি সহ ০৯টি মামলার কুখ্যাত আসামী উপজেলার জয় নগর গ্রামের মৃত রহমত আলীর পুত্র নুর আলী (৪০)কে গত ৭ জুলাই গভীর রাত্রে জয়নগর এলাকা হইতে গ্রেফতার করা হয়েছে।ধৃত আসামী নুর আলীর স্বীকারোক্তি ও দেওয়া তথ্যমতে
সিলেট চাঁদনীঘাট এলাকা হইতে রেলওয়ের
মালামাল ক্রয়-বিক্রয়সহ হেফাজতে রাখার দায়ে মিল্লাদ হোসেন ও মোঃপরান মিয়াকে গ্রেফতার এবং তাদের হেফাজত রাখা রেলওয়ের চোরাই মালামাল উদ্ধার করা হয়েছে।গ্রেফতারকৃত তিন জন আসামী এই হত্যা মামলার ঘটনায় জড়িত মর্মে বিজ্ঞ আদালতে স্বেচ্ছায় স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি প্রদান করেন।
মামলার তদন্তকারী অফিসার এসআই হাবিবুর রহমান পিপিএম এই চাঞ্চল্যকর ক্লু-লেস হত্যা মামলার রহস্য দ্রুত সময়ের মধ্যে উদঘাটন করে আসামী গ্রেফতার করায় প্রশাসনের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানানো হয়।।

এসআই হাবিবুর রহমান পিপিএম ২০১৯ সালে সুনামগঞ্জ জগন্নাথপুর থানায় কর্মরত থাকা কালে চাঞ্চল্যকর লন্ডন প্রবাসী আব্দুল গফুর হত্যার দেড় বছর পর নিখোঁজ জিডির সূত্র ধরে হত্যার রহস্য উদঘাটন করে সিলেট জৈন্তাপুর মোকাম
টিলার কবর হইতে লাশ উদ্ধার করেন ও ঘটনায়
জড়িত আসামীদের গ্রেফতার করতে সক্ষম হওয়ায় প্রধান মন্ত্রীর কাছ থেকে রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদক পান।


Categories