চাল, চিনি ও ভোজ্য তেলের দাম স্থিতিশীল রাখতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা ।

প্রকাশিত: ৭:১১ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৫, ২০২১

                            বাণিজ্য সচিব তপন কান্তি ঘোষ

চাল, চিনি ও ভোজ্য তেলের দাম স্থিতিশীল রাখতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা ।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে নিত্যপণ্য মজুদ, সরবরাহ ও মূল্য পরিস্থিতির পর্যালোচনা সংক্রান্ত এক সভায় বাণিজ্য সচিব তপন কান্তি ঘোষ বলেন, বৈশ্বিক বাজারে চাল, চিনি ও ভোজ্য তেল এই তিনটি পণ্যের দাম বেড়ে যাওয়ার প্রভাব পড়েছে বাংলাদেশেও। এর সুযোগ নিয়ে অসাধু ব্যবসায়ীরা যাতে বেশি মুনাফা করার জন্য পণ্য মজুদ বা দাম বাড়াতে না পারে, সে জন্য ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হবে।

করোনাকালে সম্প্রতি একের পর এক নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বেড়ে বাজার অস্থিতিশীল হয়ে পড়েছে। ফলে বাধ্য হয়ে এবার বাজার নিয়ন্ত্রণে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়েছে সরকার। এ ক্ষেত্রে প্রথমেই চাল, চিনি ও ভোজ্য তেলের দাম স্থিতিশীল করতে পরিচালনা করা হবে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

২৫ আগস্ট বুধবার এক সংবাদ সম্মেলনে বাণিজ্য সচিব তপন কান্তি ঘোষ জানান, রাজধানীসহ সারা দেশে নিত্যপণ্যের দাম নিয়ন্ত্রণে তদারকি জোরদার করা হচ্ছে। বিশ্ব বাজারে দাম বৃদ্ধির সুযোগে অন্যায়ভাবে পণ্যের দাম বাড়ালে বা পণ্য মজুত করলে কঠোর পদক্ষেপ নেয়া হবে।

দেশের বাজারে কোনো পণ্যের সরবরাহের ঘাটতি নেই উল্লেখ করে বাণিজ্য সচিব বলেন, তারপরেও আমদানি নির্ভর জিনিসপত্রের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে ব্যবসায়ীরা। ফলে এখন থেকে আমদানি পণ্যের ক্ষেত্রে স্থানীয় বাজারে আনুপাতিক হারে দাম রাখার জন্য মন্ত্রণালয়েকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব সফিকুজ্জামান জানান, চিনির খুচরা মূল্য আপাতত ৭৫-৮০ টাকার মধ্যে থাকবে। ভোজ্যতেলের ক্ষেত্রে আগের নির্ধারিত দামই থাকবে। আমদানির অনুমতি দেয়া, ২৫ শতাংশ ট্যাক্স কমানোর কারণে চালের দামও কমে আসবে। বিশ্ব বাজারে দাম বাড়ালেও আগস্ট মাস শোকের মাস বিবেচনায় নতুন করে দাম বাড়ানোর কোনো সুযোগ নেই।

জেলা ও উপজেলা কমিটি বিস্তৃত করার কথা জানিয়ে তিনি বলেন, স্বল্প আয়ের মানুষের কষ্ট লাঘবে টিসিবির কার্যক্রম এবার আড়াই গুণ বাড়ানো হয়েছে। টিসিবির মাধ্যমে আরো কয়েকটি পণ্য বিক্রয় করা হচ্ছে, আগামী মাস থেকে যুক্ত হবে পেঁয়াজসহ আরো কিছু পণ্য।


Categories