চট্টগ্রামে ইন্টার্ণ চিকিৎসক ও চমেকসু’র নেতৃবৃন্দের উপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন

প্রকাশিত: ৭:৪০ অপরাহ্ণ, জুলাই ২১, ২০২০
এম. ইউছুফ | চট্টগ্রাম
চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ও রাঙামাটি মেডিকেল কলেজের নবাগত চিকিৎসকদের ১২ জুলাই শপথ অনুষ্ঠানে শতাধিক বহিরাগত ও চমেক এর গুটিকয়েক উশৃংখল ছাত্র নবীন চিকিৎসক ও চমেকসু নেতৃবৃন্দের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। হামলায় তিনজন নবীন চিকিৎসকসহ মোট সাতজন গুরুতর আহত হয়। হামলাকারীরা এই ঘটনাকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার জন্য হয়রানীমূলক মিথ্যা মামলা দায়ের করে।
ওই ঘটনার পর হাসপাতাল ও কলেজ কর্তৃপক্ষ কোন যথাযথ পদক্ষেপ না নেয়ায় ‘ইন্টার্ণ ডক্টরস এসোসিয়েশন’২০-২১ ‘র আহবানে চমেক এর ইন্টার্ণ চিকিৎসক,রাঙামাট মেডিকেল এর ইন্টার্ণ চিকিৎসকসহ চট্টগ্রাম মা ও শিশু মেডিকেল কলেজ, বিজিসি ট্রাস্ট মেডিকেল কলেজ, সাউদার্ণ মেডিকেল কলেজ, ইউএসটিসি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ইন্টার্ণ চিকিৎসকরা এক যোগে স্ব-স্ব ক্যাম্পাসে এই মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও দোষীদের শাস্তির দাবীতে মানবন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করে।
মানবন্ধনে বক্তারা হামলা কারী সন্ত্রাসীদের চিহ্নিত করে বিচারের আওতায় আনা, হয়রানীমূলক মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও চিকিৎসকদের নিরাপত্তা ব্যাবস্থা জোরদারের দাবি জানান।
বক্তারা অবিলম্বে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও সন্ত্রাসীদের বিচারের আওতায় না আনা হলে চট্টগ্রামসহ সারা বাংলাদেশের ইন্টার্ণ চিকিৎসকরা কঠোর আন্দোলনের হুশিয়ারি দেন।
মানবন্ধনে উপস্থিত হয়ে একাত্মতা ঘোষনা করে চমেক ছাত্রলীগ, চমেক ছাত্রসংসদ, পোস্ট গ্রেজুয়েট স্টুডেন্টস এসোসিয়েশন, ইন্টার্ণ ডক্টরস এসোসিয়েশন, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ শিক্ষক সমিতি ও বিএমএ চট্টগ্রাম জেলা শাখা।
মানবন্ধনে বক্তব্য রাখেন, নবাগত ইন্টার্ন চিকিৎসক ডা. স্নেহাশিস চক্রবর্তী, ডা. ফারিয়া দেওয়ান তিশা, চমেকসু ভিপি ডা. এম এ আউয়াল রাফি, চমেক ছাত্রলীগের সভাপতি ডা. হাবিবুর রহমান,পোস্ট গ্রাজুয়েশন এসোসিয়েশন এর সভাপতি ডা. সাইফ উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক ডা. সাইফুল ইসলাম বাদল এবং বিএমএ চট্টগ্রাম শাখার সম্মানিত সম্মানিত সাধারণ সম্পাদক ডা. ফয়সল ইকবাল চৌধুরী এবং সভাপতি অধ্যাপক ডা. মুজিবুল হক খান ও ইন্টার্ণ ডক্টরস এসোসিয়েশন এর আহবায়ক ডা. ওসমান গনি।