খুলনা মহানগরীর দৌলতপুরে শিশু আংকিতা ধর্ষণের পর হত্যার আসামি গ্রেপ্তার। আদালতে স্বীকারোক্তি। 

প্রকাশিত: ১১:২৭ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৩০, ২০২১

আসা‌মী প্রীতম রুদ্র (২৭)

মোঃ মিজানুর রহমান খুলনা জেলা প্রতিনিধি।

খুলনা মহানগরীর দৌলতপুরে শিশু আংকিতা ধর্ষণের পর হত্যার আসামি গ্রেপ্তার। আদালতে স্বীকারোক্তি। 

খুলনার দৌলতপুর এলাকায় ৩য় শ্রেনীর ছাত্রী অ‌ঙ্কিতা (৮) কে ধর্ষনের পর হত‌্যাকা‌ন্ডের মামলায় আসা‌মী প্রীতম রুদ্র (২৭) কে গ্রেফতার করেছে পু‌লিশ। আজ শ‌নিবার (৩০ জানুয়ারি) তা‌কে আদাল‌তে হা‌জির করা হ‌লে এঘটনার সা‌থে জ‌ড়িত থাকার কথা স্বীকার ক‌রে আদাল‌তে জবানব‌ন্দী দেয় সে। খুলনা মে‌ট্রোপ‌লিটন ম‌্যা‌জি‌স্ট্রেট মোঃ স‌রোয়ার আহ‌ম্মেদ ফৌজদা‌রি কার্যবি‌ধির ১৬৪ ধারায় আসা‌মীর জবানব‌ন্দী রেকর্ড ক‌রে‌ন। আসা‌মি প্রীতম রুদ্র দৌলতপুরের পাবলা ব‌ণিকপাড়া এলাকার প্রভাত কুমার রুদ্র’র পুত্র।

৩য় শ্রেনীর ছাত্রী অ‌ঙ্কিতা (৮)

গত ২২ জানুয়ারি দুপুরে বনিকপাড়া মৌচাক টাওয়ারের সামনে থেকে স্কুলছাত্রী অঙ্কিতা নিখোঁজ হয়। সে পাবলা বনিকপাড়া এলাকার সুশান্ত দের মেয়ে। এঘটনার ছয়দিন পর ২৮ জানুয়ারি বাড়ি থেকে কয়েকশ’ গজ দূরে বীণাপানি চারতলা ভবনের নিচতলার বাথরুম থেকে পুলিশ বস্তাবন্দি অবস্থায় মেয়েটির লাশ উদ্ধার করে।

পুলিশ এরমধ্যে পাবলা বনিকপাড়ার যে বাড়ি থেকে মেয়েটির লাশ উদ্ধার হয়েছে সেই বীণাপানি ভবনের মালিকের ছেলে, ভাড়াটিয়াসহ ছয়জনকে থানায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা দৌলতপুর থানার এস আই মোঃ মিজানুর রহমান জানান, স্কুলছাত্রী অঙ্কিতাকে ধর্ষনের পর নির্মমভা‌বে হত‌্যা ক‌রে লাশ বস্তাব‌ন্দী ক‌রে গুম করার কথা আদাল‌তে স্বীকার ক‌রে‌ছে আসা‌মী প্রীতম রুদ্র। তা‌কে আদালত জেলহাজ‌তে প্রের‌নের আদেশ দি‌য়ে‌ছেন।


Categories