ক্লাবকে সেরাটা দেওয়াই আমার কাজ- মার্টিনেজের মন্তব্য কোনো সমস্যা না।

প্রকাশিত: ৫:২৭ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২৯, ২০২২

ক্লাবকে সেরাটা দেওয়াই আমার কাজ- মার্টিনেজের মন্তব্য কোনো সমস্যা না।

বিশ্বকাপের ফাইনালে হারের হতাশায় ডুবে থাকতে রাজি নন ফ্রান্সের তারকা কিলিয়ান এমবাপ্পে। কাতারের হতাশা ভুলে পিএসজিকে সব শিরোপা জেতাতে চান তিনি।

এমিলিয়ানো মার্টিনেজ ও কিলিয়ান এমবাপ্পে ইস্যুতে কাতার বিশ্বকাপ শেষ হলেও সরগরম ফুটবল পাড়া। ফ্রান্স এবং আর্জেন্টিনার মধ্যকার শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচের আগের ও পরে এমবাপ্পেকে নিয়ে একাধিক বিতর্কিত মন্তব্য করে সমালোচিত হন মার্টিনেজ। যদিও বিষয়টি নিয়ে এতদিন কিছুই বলেননি ফরাসি তারকা। অবশেষে মুখ খুললেন ২৪ বছর বয়সী এই ফুটবলার।

কাতার বিশ্বকাপ গত ১৮ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত ফাইনালের আগে সংবাদমাধ্যমে মার্টিনেজ বলেন, এমবাপ্পে নাকি ফুটবলই বোঝেন না। এমনকি শিরোপা জেতার পর নিজেদের ড্রেসিংরুমে পিএসজি ফরওয়ার্ডের জন্য এক মিনিট নীরবতা পালন করেন এই তারকা গোলরক্ষক। সেখানেই সীমাবদ্ধ থাকেননি মার্টিনেজ। শিরোপা নিয়ে দেশে ফিরে গিয়েও ঘটান এক বিতর্কিত কাণ্ড।

এছাড়াও ছাদখোলা বাসে সংবর্ধনার সময় এমবাপ্পের মুখের পুতুল নিয়ে দাঁড়িয়ে ছিলেন মার্টিনেজ। এরপর থেকেই গুঞ্জন ওঠে মার্টিনেজের এসব কাণ্ডে পিএসজিতে মেসি ও এমবাপ্পের সম্পর্কে ফাটল ধরবে। যদিও এমন গুঞ্জনকে আর ডালপালা মেলতে দিলেন না সাবেক মোনাকো তারকা। জানালেন, এসবে কান না দিয়ে নিজের পারফরম্যান্স নিয়ে ভাবতে চান তিনি।

গত রাতে স্ট্রার্সবার্গের বিপক্ষে ম্যাচ শেষে সাংবাদিকদের এমবাপ্পে বলেন, ‘মার্টিনেজের উদযাপন করা নিয়ে আমার কোনো সমস্যা নেই। এসব নিয়ে কথা বলে সময় নষ্ট করতে চাই না। আমার কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো ক্লাবের জন্য নিজের সেরাটা দেওয়া।’

খুব কাছে গিয়েও আরেকটি বিশ্বকাপ জয়ের স্বপ্ন ছুঁতে না পারার কষ্ট এখনও পোড়াচ্ছে কিলিয়ান এমবাপেকে। কাতার বিশ্বকাপ ফাইনালের হার কিছুতেই ভুলতে পারছেন না ফরাসি ফরোয়ার্ড। তবে সেই হতাশায় ডুবে থাকতে রাজি নন তিনি। নিজের ক্লাবকে সব শিরোপা এনে দেওয়ার লক্ষ্য এবার পিএসজি তারকার।

কাতারে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে এমবাপে সর্বোচ্চটা উজাড় করে দিলেও শেষ পর্যন্ত জিততে পারেনি ফ্রান্স। টাইব্রেকারে ৪-২ ব্যবধানে হেরে ভাঙে তাদের শিরোপা ধরে রাখার স্বপ্ন।

বারবার পিছিয়ে পড়া ফ্রান্সকে সমতায় ফেরান এমবাপে। তার নৈপুণ্যেই নির্ধারিত সময়ের ২-২ ও অতিরিক্ত সময় শেষে ৩-৩ স্কোরলাইনে শেষ করতে পারে ফ্রান্স। বিশ্বকাপের ইতিহাসে ফাইনালে হ্যাটট্রিক করা দ্বিতীয় খেলোয়াড় তিনি।

বিশ্বকাপ বিরতির পর খেলতে নামা পিএসজিকেও শেষ মুহূর্তে উদ্ধার করেন এমবাপেই। স্ত্রাসবুরের বিপক্ষে লিগ ওয়ানের ম্যাচে যোগ করা সময়ে সফল স্পট-কিকে দলকে ২-১ ব্যবধানের জয় এনে দেন তিনি।

ম্যাচের পর এমবাপে বললেন, বিশ্বকাপ ফাইনালে হার এখনও কষ্ট দিচ্ছে তাকে। তবে ক্লাবকে জেতাতে পারায় উচ্ছ্বসিত তিনি। অপরাজিত থেকে এবারের মৌসুম শেষ করার ইচ্ছা তার।

“ব্যক্তিগতভাবে, আমি কখনও এটা (বিশ্বকাপ ফাইনালে হার) ভুলতে পারব না। তবে জাতীয় দলের ব্যর্থতায় আমার ক্লাবের তো কোনো দায় নেই। আমি ইতিবাচক প্রাণশক্তি নিয়ে ফেরার চেষ্টা করেছি।”

“আমি চেষ্টা করেছি দলকে উজ্জীবিত রাখতে। আশা করছি, এবারের মৌসুমে আমরা অপরাজিত থাকব। ওটা ছিল বিশ্বকাপ-সেখানে ক্লাবের সঙ্গে কোনো সম্পর্ক নেই।”

লিগ ওয়ানে এখন পর্যন্ত ১৬ ম্যাচ খেলে একটিতেও হারেনি পিএসজি। ১৪ জয় ও ২ ড্রয়ে ৪৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে তারা। দ্বিতীয় স্থানে থাকা লঁসের পয়েন্ট ৩৬, তারা খেলেছে ১৫ ম্যাচ।

গত মৌসুমে লিগ ওয়ানের চ্যাম্পিয়ন পিএসজি। এবার শিরোপা ধরে রাখতে এগিয়ে যাচ্ছে দলটি। বাকি সব ট্রফিও জিততে চান ২৪ বছর বয়সী এমবাপে।

“বার্তাটি একেবারেই সহজ। জাতীয় দলে যাই হোক না কেন, পিএসজি অন্য কিছু। আমি এখনও সব ট্রফি রাজধানীতে ফিরিয়ে আনতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ।”

এমবাপ্পে মেসিকে নিয়ে বলেন, ‘আমরা মেসির অপেক্ষায় আছি। আবারও একসাথে খেলতে চাই। একসাথে গোল উদযাপন করতে চাই। বিশ্বকাপের ফাইনাল ম্যাচ শেষে আমি ওর সাথে কথা বলেছি। অভিনন্দন জানিয়েছি। সে সারাজীবন এমন কিছুর অপেক্ষায় ছিল। আমিও জিততে চেয়েছিলাম। সেটা পারিনি।’

উল্লেখ্য, কাতার বিশ্বকাপ শুরুর আগে ল্যাটিন আমেরিকার ফটবল নিয়ে এমবাপ্পের করা একটি মন্তব্য থেকেই বিতর্কের সূত্রপাত শুরু হয়।


Categories