কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্ণর হিসেবে ফজলে কবিরই থাকছেন অরো দুই বছর।

প্রকাশিত: ৭:১৯ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৫, ২০২০

মো.আশরাফুল লতিফ(তুহিন),সহ-বার্তা সম্পাদক।

বাংলাদেশ  ব্যাংকের গভর্নর হিসেবে আরো দুই বছরের জন্য সাবেক গভর্ণর জনাব ফজলে কবীরকে  নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। আজ ১৫ জুলাই বুধবার তাকে নিয়োগ দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে অর্থ মন্ত্রণালয়।

রাষ্ট্রপতির অাদেশক্রমে  অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের উপ-সচিব মো. জেহাদ উদ্দীন স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, বাংলাদেশ ব্যাংক অর্ডার, ১৯৭২ যা বাংলাদেশ ব্যাংক (অ্যামেন্ডমেন্ট) অ্যাক্ট, ২০২০ দ্বারা সংশোধিত এর অনুচ্ছেদ ১০ (৩) এবং ১০ (৫) এর বিধান অনুযায়ী ফজলে কবিরকে  ২০২২ সালের ৩ জুলাই পর্যন্ত মেয়াদে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর হিসেবে নিয়োগ প্রদান করা হলো।

প্রজ্ঞাপনে অারো বলা হয় যে ,  তিনি গভর্নর পদে নিয়োজিত থাকাকালীন সরকারের সঙ্গে সম্পাদিত চুক্তির শর্ত মোতাবেক বেতন-ভাতা ও অন্যান্য সুবিধাদি বাংলাদেশ ব্যাংক হতে গ্রহণ করবেন।

এ নিয়োগের অন্যান্য বিষয় উল্লিখিত চুক্তিপত্র দ্বারা নির্ধারিত হবে। জারিকৃত এ আদেশ অবিলম্বে কার্যকর হবে।

২০১৬ সালের ১৫ মার্চ ফজলে কবিরকে চার বছরের জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর হিসেবে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দিয়েছিল সরকার। তিনি ওই বছরের ২০ মার্চ বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর হিসেবে যোগদান করেন। সেই অনুযায়ী তার চুক্তিভিত্তিক নিয়োগের মেয়াদ গত ২০ মার্চ শেষ হয়। পরে সরকার তার মেয়াদ আরও সাড়ে তিন মাস বাড়ায়। গত ৩ জুলাই সেই মেয়াদও শেষ হয়। গভর্নরের অবর্তমানে ২ জন ডেপুটি গভর্নর দায়িত্ব পালন করছিলেন।

উল্লেখ্য, গত ৯ জুলাই বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নরের বয়স ৬৫ বছর থেকে বাড়িয়ে ৬৭ বছর করতে সংসদে বিল পাস হয়। গভর্ণর পদে ৬৫ বছরের বেশি ব্যক্তিকে নিয়োগ দেয়ার বিধান নেই। এমনকি তিনি যদি বাংলাদেশ ব্যাংকে দায়িত্ব পালনকারী অভিজ্ঞতা সম্পন্নও হন, তাকে পূনর্নিয়োগ দেয়ার বিধান না থাকায় সংসদে সংশোধনী বিলটি পাস হয়।গত ৩ জুলাই ২০২০ খ্রিষ্টাব্দে গভর্ণর ফজলে কবিরের ৬৫ বছর পূর্ণ হয়।

 

 

 


Categories