কাঠাল চুরির অপরাধে লাটি দিয়ে পিটিয়ে সালমানকে হত্যা

প্রকাশিত: ১০:৪০ অপরাহ্ণ, জুন ২৪, ২০২০

মোঃ দুদু মিয়া তানভীর,মৌলভীবাজারঃ
মৌলভীবাজার জেলার কুলাউড়া উপজেলার ভাটেরা ইউনিয়নের জগতপুর গ্রামের আলোচিত সালমান (১৫) হত্যাকান্ডের মুলহোতা তোরাব খান (৫০) গ্রেপ্তার।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এবং কুলাউড়া থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) সঞ্জয় চক্রবর্তীর নিরলস প্রচেষ্টায় হত্যাকান্ডের এক সপ্তাহ পর ঘাতককে তার বাড়ি থেকে (২৪ জুন) গ্রেপ্তার করা হয়।ঘাতক তোরাব খানকে আদালতে প্রেরন করা হয়েছে এবং জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে আবেদন করা হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সুত্রে জানা, নিখোঁজের একদিন পর গত ১৮ জুন বৃহস্পতিবার দুপুরবেলা জগতপুর এলাকার সালমান আহমদ(১৭) নামের এই যুবকের লাশ এক টিলার ওপর থেকে উদ্ধার করা হয়। নিহত সালমান ওই এলাকার মোঃ সাহাদ মিয়ার ছেলে।

জানা যায়, গত ১৭ জুন দুপুর ২ টার সময় জ্বালানী কাঠ সংগ্রহের জন্য বাড়ি থেকে বের হয় সালমান। কিন্তু রাত পর্যন্ত বাড়িতে ফিরে না আসায় বাড়ির সবাই অনেক খোঁজাখুঁজির পর তার সন্ধান পাননি। পরদিন বৃহস্পতিবার সকালে তার বড় ভাই রুহান মিয়া আবারও খুঁজতে গেলে একটি টিলার ওপর সালমানের লাশ দেখতে পান। খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন কুলাউড়া সার্কেলের পুলিশ সুপার গোলাম দস্তগীর,কুলাউড়া থানার অফিসার ইনচার্য ইয়ারদৌস হাসান, অসি(তদন্ত) সঞ্চয় চক্রবর্তী প্রমুখ। এ ঘটনায় সালমানের মা সালমা বেগম অজ্ঞাত আসামী দিয়ে থানায় মামলা করেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বাগানের কাঠাল চুরির অপরাধে ঘাতক তোরাব খান লাটি দিয়ে পিটিয়ে সালমানকে হত্যা করে। ঘাতক তোরাব খান জগতপুর গ্রামের পাশের উপজেলা ফেঞ্চুগঞ্জের সিংহনাদ গ্রামের বাসিন্দা মৃত সুজন খানের পুত্র। এলাকাবাসি জানায় তোরাব খান হিংস্র প্রকৃতির মানুষ। পরিবার সহ এলাকার সবাই চায় ঘাতকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হউক।