“কষ্ট” তরিকুল আলম তারিক

প্রকাশিত: ৯:১৭ অপরাহ্ণ, জুলাই ৩, ২০২০
কষ্ট গুলোও একসময় মলিন হয়
-হয় ধুসর।
রোদের তাপে যেমন কাপড়ের রঙ ফ্যাকাসে হয় -হয় ফিনফিনে।
সময়ের স্রোতে কষ্টগুলোও দূরত্ব বাড়ায় -হয় নিভু নিভু।
এই যে তুই !
সেই কবে হারিয়ে গেলি
চোখের আড়ালে, সীমানা ছাড়িয়ে।
প্রথম প্রথম তোর চলে যাওয়াটা
মানতেই চাইতো না মন।
তোর ভাবনায় ব্যাকুল হতাম
পার হতো ঘুমহীন দীর্ঘ রজনী।
ফিরে আসতি বারবার
কি শয়নে, কি জাগরণে।
প্রতিটি ক্ষনে, প্রতিটি মুহুর্তে
তোর মুখ, তোর শূন্যতা
কুরে কুরে খেতো আমায়।
সেই তুই !
এখন অনেকটাই মলিন
-অনেকটাই ধুসর।
সময় অতীতকে চাপা দিয়ে,
দারুন ভাবে ভুলিয়ে রাখে।
এখন আমার ঘুম আসে,
নেই আর তোর সেই আগের মতো বাড়াবাড়ি।
তোর মুখ আর আগের মতো
হানা দেয় না যখন তখন।
কালে ভাদ্রে আসলেও
বড্ডই জরাজীর্ণ -ঝাপসা।
প্রকৃতি কষ্ট দেয় আবার
তা সয়ে নেওয়ার ক্ষমতাও দেয়।
প্রকৃতি তার সৃষ্টিকে একটা নির্দিষ্ট
সময় পর্যন্ত পরিচর্যা করেন।
ধীরে-ধীরে-ধীরে-ধীরে খুব সঙ্গোপনে
মুছে দেন কষ্টের গভীরতা।
এটাই প্রকৃতির ধর্ম।।
তারেক