কলেজ ছাত্রীর চুল কাটার ঘটনায় আটককৃত রায়হানের স্ত্রী রূপা কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ

প্রকাশিত: ৭:০৮ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২০

মোঃ রুবেল হোসেন, মান্দা প্রতিনিধিঃ নওগাঁর নিয়ামতপুরে কলেজ ছাত্রীর মাথার চুল কেটে, অশ্লীল ছবি তুলে ইন্টারনেটে প্রচারের মূল হোতা ইতি পূর্বেই পুলিশের আটক রায়হান এর স্ত্রী রূপা (২০) কে ও গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
অপরদিকে নওগাঁ জেলা পুলিশ সুপার প্রকৌশলী আব্দুল মান্নান মিয়া বিপিএম মহোদয় মাথার চুলকেটে নির্যাতিতা সূমীকে দেখতে নিয়ামতপুর হাসপাতাল যান।
জানা যায়, গত ২৩ সেপ্টেম্বর বুধবার ভোর সকালে নিয়ামতপুর খানার ওসি হুমায়ন কবিরের নেতৃত্বে এস আই মতিয়ার রহমান সহ সঙ্গীয় মহিলা ফোর্স নিয়ে অভিযান চালিয়ে নওগাঁর মান্দা উপজেলার পরানপুর ইউনিয়নে রূপার ফুফুর বাড়ী থেকে রুপাকে গ্রেফতার করেন পুলিশ।

জেলা পুলিশ সুপার প্রকৌশলী আব্দুল মান্নান মিয়া বিপিএম মহোদয় নির্যাতীত কলেজ ছাত্রীকে দেখার ও ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের জানান, ঘটনাটি গত ২০ সেপ্টেম্বর ঘটেছে। কিন্তু ২১ তারিখে আমরা অভিযোগ পাই। অভিযোগের পূর্বেই মূল আসামী রায়হানকে আমরা গ্রেফতার করতে সক্ষম হই। আজ (বুধবার) তার স্ত্রী রূপা যে নিজে সুমীর মাথার চুল কেটে দিয়েছে বলে ইতিমধ্যেই পুলিশের কাছে শিকার করেছেন তাকেও গ্রেফতার করা হয়। আমরা আদালতের কাছে রিমান্ড চাইবো বাকী আসামীদের সম্পর্কে জানার জন্য।
নিয়ামতপুর থানার অফিসার ইন চার্জ হুমায়ন কবির বলেন, আমরা মামলার পূর্বেই মূল হোতা রায়হানকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করি। আজ বুধবার তার স্ত্রী রূপাকেও গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করি। এ ঘটনার সাথে যেই জড়িত থাকুক, কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। সবাইকে আইনের আওতায় আনা হবে।

উল্লেখ্য-গত ২০ সেপ্টেম্বর রবিবার বেলা ৫টা থেকে ৭টা পর্যন্ত উপজেলার ঝাজিরা গ্রামের মতিউর রহমানের ছেলে রায়হান ও তার কয়েকজন বন্ধু উপজেলার শাংশৈইল গ্রামের আমিরুল ইসলামের মেয়ে নিয়ামতপুর উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় এন্ড কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রী সুমীকে জোর পূর্বক ভাড়া বাড়ীতে আটকে রেখে শারীরিক নির্যাতন ও মাথার চুল কেটে দেয়।


Categories