কবিতা – প্রসব যন্ত্রণা

প্রকাশিত: ১:২০ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ২২, ২০২০

       প্রসব যন্ত্রণা 

দশ মাস দশ দিন

আমার সঙ্গে ছিলে অচিন ,

উদরের  মাঝে ধারণ করে,

এনেছি তোমায় ধরণীর পরে।

সেই দিনের স্মৃতির কথা

বলতে গেলে জাগে ব্যথা,

ব্যথা ব্যথা  জ্বর জ্বর, 

সুখ-শান্তি করে পর।

ধরেছি তোমায় উদর মাঝে

কষ্ট নিয়ে সকাল সাঁজে, 

খেতে পারেনি কোনো কিছু,

বমি বমি নিয়েছে পিছু  ।

চোখে ছিল না সুখের ঘুম 

পোহায়ে  দিয়েছি রাত্রি নিঝুম,

বড় কষ্টের ধন তুমি,

সাক্ষী রয়েছে আল্লাহর ভূমি ।

যখন প্রসবের দিন এলো

কলিজাটা আমার ছিঁড়ে গেলো,

এমন   যন্ত্রণা ধরণিতে আর, 

 সমান হবে  কি প্রসব যন্ত্রণার ।

আজ তুমি হয়েছে বড়

রাজ্যের সুখ করছো জড়ো, 

ভেবে দেখো ছিলে কোথায়,

কিভাবে এলে  হেথায়। 

মাতৃ  জঠরের  যন্ত্রনার  ঝণ

শোধাতে পারবেনা কোনোদিন,

সুখে আছো অট্টালিকা পরে ,

আমি কাঁদি কুঁড়েঘরে ।

অন্ন নাই, বস্ত্র  নাই 

সুখ-শান্তি কোথায় পাই, 

 মাথাব্যথা আর জ্বরে,

ঔষধ ছাড়াই ধৈর্য ধরে।

 তুমি আমার বুকের ধন

আমি তোমার আপনজন ,

তুমি সুখ, তুমি শান্তি,

ভুলে যায় সকল ক্লান্তি ।

এসো খোকা, বুকে এসো 

আমার হৃদয়ের যন্ত্রনা নাশো,

তুমি যে আমার নাড়ির অংশ, 

আমার অস্তিত্ব ,আমার বংশ।

তুমি কি ভুলে গেছে মোরে 

ডাকি তোমায় মধুর সুরে, 

এসো  আমার হৃদয় মাঝে ,

শান্তি পাব সকল কাজে ।

চায়না অর্থ, চায়না সম্পদ

সকলে ছেড়ে হবো ভূ-গত,

কাছে এসে ডাকবে মা,

তুমি যে আমার বুকের ছা।

ছানা ছাড়া  পাখি যেমন

তোমায় ছাড়া আমিও তেমন,

তুমি আমার চোখের মণি

আমার হৃদয়ে সুখের খনি ।

প্রসব যন্ত্রণার করুন কথা

হৃদয়ে ভেসে  জাগায় ব্যথা,

বড়ই নিষ্ঠুর সেই জ্বালা,

কেমনে বুঝাবো দুঃখের পালা।

প্রসব যন্ত্রণার ছবিখানা

 সকল মায়েরই আছে  জানা, 

কাছে এসো, প্রাণ খুলে

প্রসব যন্ত্রণা যাব ভুলে। 

 


Categories