কবিতা: গাঁয়ের পথে

প্রকাশিত: ৯:২৪ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ১৫, ২০২১

গাঁয়ের পথে
মোঃ হারুনুর রশীদ

শহর ছাড়ি যখন আমি , যাই সে আমার গাঁয়-
দেহ যাবার আগেই ,আমার মনটা চলে যায়,
বাড়ীর পানে যাইবার কালে, ট্রেনে নয়তো বাসে-
সিটে বসে থাকলেও মনটা পেখম মেলে নাচে।

যাবো বাড়ী হবে দেখা, আপনজনার সাথে-
কেমন আছ? আছি ভাল, বলবে সবাই পথে,
হয়তো সবাই বলবে দেখে- এতদিন পর এলে?
কেমন করে থাক ভুলে-প্রিয় গ্রামটি ফেলে।

হাটবো আমি খালি পায়ে- আমার গাঁয়ের পথে-
স্মৃতি চারণ করবো কতো- বন্ধুদেরই সাথে,
শত স্মৃতির বেরজালে আসবে দীর্ঘ শ্বাস-
যে সব স্মৃতির ভিড়ে মোরা করছি বসবাস।

যাবো আমি শ্যামল মাঠে-ক্ষেতের আইল ধরে-
সরু পথের পিছিল কাঁদায়- হয়তো যাবো পরে!
লাগবে কাঁদা আমার গায়ে, যায় বা কি তা আসে,
পরশ পাবে আমার এ মন সবুজ সতেজ ঘাসে।

সেই গাঁয়েরই ধুলি-বালি, লেগে আছে গায়-
সেই মাটিতেই ঘুমিয়ে আছে, আমার বাবা-মায়,
বাবা-মাকে দেখবো আমি, দাঁড়িয়ে কবর পাশে-
আমায় দেখে তারা যদি, একটু খানি হাসে!

হয়তো তারা বলবে তখন, আসছো খোকন সোনা?
দোয়া কর প্রভুর তরে, মাফ করিতে গোনাহ্,
দু-হাত তুলে করব দোয়া, ওহে দয়াময়-
বাবা-মায়ের তরে যেন, বেহেস্ত নসীব হয়।

করবো দোয়া ভাই-বোনেরে, করতে গোনাহ্ মাফ-
আল্লাহ তুমি কর ক্ষমা, কবরের আযাব,
বন্ধুবান্ধব, প্রতিবেশি, কত আপনজন-
ঘুমিয়ে আছে সেই মাটিতেই- ছিড়ে সব বাঁধন।

কদিন পরে আবার যখন, গ্রামটি ছেড়ে আসি-
মমতার ঐ বাধন ছেড়া, মনটা হয় উদাসী,
সবার শেষে ফিরবো আবার, শহরের ঐ পানে-
শত কষ্টের জাল বুনিয়া, হৃদয়ের ঐ কোণে।

একটু হাটি আবার দাঁড়াই, আবার একটু হাটি-
পা গুলো মোর আকড়ে ধরে, আমার গাঁয়ের মাটি,
শৈশব, কৈশোর, যৌবন সবই, জড়িয়ে আছে গাঁয়-
এসব ছেড়ে মনটা কি আর, ফিরে আসতে চায়?

কষ্ট ভরা দীর্ঘশ্বাসে ভরে থাকে মন-
গ্রামটি ছেড়ে শহর পানে পা বাড়াই যখন,
মনে কত কষ্ট নিয়ে-গ্রামটি ছেড়ে আসি-
শত চেষ্টা করেও মুখে আসে নাকো হাসি।

জীবনের এই বাস্তবতা করলো মোরে ঘ্রাস-
ভাল মন্দের দোলায় চলে জীবন হলো নাশ,
যুগের পরে যুগ কেটে যায়-ঢাকার এই শহরে-
তবুও আমার মনটি যেন গ্রামেই থাকে পড়ে।


Categories