কবিতা: এমপিও নীতিমালা

প্রকাশিত: ৮:৩৫ অপরাহ্ণ, জুন ২৭, ২০২০

আব্দুল মান্নান

সংশোধন কমিটির কাছে
জানাই অনুরোধ।
শিক্ষকদের বৈষম্যের প্রতি
রাখুন মনোযোগ।

৫ঃ২ অনুপাত প্রথা আজব
শিক্ষার বিষ পোড়া!
তারই বিষে প্রভাষক মন
হচ্ছে শুধু খোড়া!

পদোন্নতির বিধি করে
প্রথা করেন বন্ধ।
বদলির বিধান চালুর ক্ষেত্রে
থাকেনা যেন দ্বন্দ্ব!

৮ বছরান্তে জ্যেষ্ট যারা
৬ষ্ট গ্রেডের প্রাপ্তি!
তরুণ শিক্ষক দশ বছরে
নিবে হাজার টাকার তৃপ্তি !

দশ বছরান্তে ১হাজার টাকা
সম্মান তাদের লাঞ্চনার!
১৬ বছরে ৭ গ্রেড প্রাপ্তি
বিধি চরম বঞ্চনার!

প্রতিষ্ঠানের প্রধান হওয়ার
আজব যতসব শর্ত!
মেধাবীদের সে পদে লাভের
মরিচীকাময় গর্ত!

সৎ,মেধাবী শিক্ষক যেন
প্রতিষ্ঠানের প্রধান হয়।
তাদের সেবায় প্রতিষ্ঠানের
নয়ছয় নীতি হয় ক্ষয়।

শিক্ষা ভাতা,৪০% বাড়ি-ভাড়া
গৃহ ঋণের প্রস্তাব দিন
প্রিসিডেন্ট এর আওতায় হলে
স্মরণ থাকবে এ মহা ঋণ।

যার টাকাতে তারে পেনশন
আজব নীতি রদ করুন!
৪% কর্তন বন্ধ করে
পেনশন প্রথা চালু করুন।

প্রতিষ্ঠানের সর্ব ইনকাম
রাজকোষেতে জমা নিন।
লোপাট নীতি বন্ধ করে
জাতীয়করণ করে দিন।

নীতিমালা যেন না হয়
ভীতির প্রলেপ মালা!
যেই মালাতে গুপ্ত থাকে
শিক্ষক মনের জ্বালা!