এমপিও নীতিমালা সংশোধনী চুড়ান্তকরণের সভা অনুষ্ঠিত, ফের সভা কাল

প্রকাশিত: ৯:৪৫ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৫, ২০২০

আজ (৫ আগস্ট)  বুধবার শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির সভাপতিত্বে  এমপিও নীতিমালা সংশোধনী চুড়ান্তকরণের সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ নিয়ে পরপর দু’দিন সভা অনুষ্ঠিত হলো। সভায় উপস্থিত ছিলেন  মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো.মাহবুব হোসেন। এমপিও নীতিমালা ও জনবল কাঠামো সংশোধনের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন এমপিও  নীতিমালা সংশোধন কমিটির আহবায়ক,  অতিরিক্ত সচিব মোমিনুর রশিদ আমিন।

আজকের এমপিও নীতিমালা চূড়ান্তকরণ সভায় নন এমপিও শিক্ষক নেতারা নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী গ্রন্থাগারিক পদটি নীতিমালায় অন্তর্ভুক্ত করার দাবি তোলেন । এছাড়া সভায় বিএড স্কেল নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, আজকের সভায় তেমন কোনো কিছুই চূড়ান্ত হয়নি। নীতিমালা সংশোধনের যেসব দিক কমিটি ঠিক করেছে তা চূড়ান্তকরণের সভায় উপস্থাপন করা হচ্ছে। মন্ত্রণালয় শীর্ষস্থানীয়দের অনুমোদন নিয়ে সংশোধিত নীতিমালা চূড়ান্ত করা হবে। আগামীকাল (৬ আগস্ট) বৃহস্পতিবার পরবর্তী সভা অনুষ্ঠিত হবে।

বেসরকারি স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের  এমপিও নীতিমালার সংশোধনী চূড়ান্তকরণে  এ নিয়ে মোট  চার দফা  সভা অনুষ্ঠিত হলো। এখনো এমপিওভুক্ত প্রভাষকদের পদোন্নতিতে অনুপাত প্রথা, প্রভাষকদের উচ্চতর স্কেল, এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের বদলি , প্রতিষ্ঠান প্রধান নিয়োগের যোগ্যতা সহ বহুল আলোচিত বিষয়গুলো নিয়ে কোন আলোচনা হয়নি।

এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের  দাবিদাওয়ার প্রেক্ষিতে বিদ্যমান নীতিমালা ও জনবল কাঠামো সংশোধনের উদ্যোগ নেয় সরকার। এ লক্ষ্যে গত বছর শিক্ষা মন্ত্রণালয় কমিটি গঠন করে।  কমিটি গত জুন মাসে নীতিমালা সংশোধনের সুপারিশ প্রতিবেদন তৈরি করে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির কাছে জমা দেয়।

গত  বছরের ১২ নভেম্বর বেসরকারি স্কুল ও কলেজের এমপিও নীতিমালা ও জনবল কাঠামো সংশোধনে ১০ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।  মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের বেসরকারি মাধ্যমিক শাখার অতিরিক্ত সচিব মোমিনুর রশিদকে কমিটির আহ্বায়ক করা হয়। কমিটিতে ননএমপিও শিক্ষক নেতারাও সদস্য হিসেবে ছিলেন।  এমপিও নীতিমালা ও জনবল কাঠামো পর্যালোচনা করে প্রয়োজনীয় সংস্কারের সুপারিশ করতে বলা হয়েছিল এ কমিটিকে। এরপর এ  লক্ষ্যে পাঁচটি সভা করে কমিটি।

পত ৪ ডিসেম্বর এমপিও নীতিমালা ও জনবল কাঠামো সংশোধনে গঠিত কমিটির প্রথম সভা অনুষ্ঠিত হয় । এরপর  যথাক্রমে  ১২ ডিসেম্বর, ২২ ডিসেম্বর, ৭ জানুয়ারি  ১১ মার্চ আরো ৪টি সভা অনুষ্টিত হয়। সভাগুলোর আলোচনা নিয়েই এমপিও নীতিমালা সংশোধনের লিখিত সুপারিশ তৈরি করা হয়েছে বলে  জানিয়েছে  শিক্ষা মন্ত্রণালয় ।

এদিকে এমপিও নীতিমালা – ২০১৮ এর কিছু ধারা নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন শিক্ষক নেতারা। বাংলাদেশ বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারী ফোরামের যুগ্ম মহাসচিব জনাব  আব্দুল জব্বার বলেন, সহকারী শিক্ষকদের বিএড স্কেল নিয়োগকালীন যোগ্যতাভিত্তিক স্কেল। এটি উচ্চতর স্কেল  হতে পারেনা।  এ নীতিমালার ফলে শিক্ষকরা বিএড প্রশিক্ষণে আগ্রহ হারাবে। তিনি বিএড স্কেলকে আগের মত নিয়োগকালীন স্কেল হিসেবে গণ্য করে এরপর দুটি উচ্চতর স্কেল প্রদানের দাবি জানান।

 

বাংলাদেশ বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারী ফোরামের সাংগঠনিক সম্পাদক জনাব মোঃ এনামুল ইসলাম মাসুদ বলেন, প্রতিষ্ঠান প্রধান নিয়োগের আবেদনের ক্ষেত্রে অভিজ্ঞতার ভিত্তিতে সহকারী শিক্ষক/প্রভাষকদের ও আবেদনের সুযোগ ছিল আগের নীতিমালাগুলোতে। বর্তমান নীতিমালায় এ সুযোগ রাখা হয়নি। তিনি প্রতিষ্ঠান প্রধান নিয়োগের আবেদনে পূর্বের ন্যায় অভিজ্ঞতার ভিত্তিতে সহকারী শিক্ষক ও প্রভাষকদের সুযোগ বহাল করার দাবি জানান।

 

পদোন্নতি বঞ্চিত প্রভাষক সমাজের প্রধান সমন্বয়কারী জহিরুল ইসলাম বলেন ,সরকারি কলেজের প্রভাষকরা বিভাগীয় পরীক্ষা এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভাষকরা জার্নালে প্রকাশনার ভিত্তিতে ক্রমান্বয়ে অধ্যাপক পদে পদোন্নতি পেলে ও এমপিওভুক্ত কলেজের প্রভাষকদের শুধুমাত্র সহকারী অধ্যাপক পদে পদোন্নতি দেওয়া হয়।তা ও অনুপাত নামক অযৌক্তিক ও অমানবিক প্রথার কারণে ৭৩% প্রভাষককে আজীবন প্রভাষক থাকতে হয়। তিনি বলেন, অভিশপ্ত অনুপাত প্রথা বাতিল করে অভিজ্ঞতার ভিত্তিতে সকল প্রভাষককে ধাপে ধাপে সহকারী অধ্যাপক , সহযোগী অধ্যাপক ও অধ্যাপক পদে পদোন্নতি দিতে হবে।

 

পদোন্নতি বঞ্চিত প্রভাষক সমাজের মুখপাত্র এম.এ.মতিন  বলেন, বর্তমান নীতিমালায় পদোন্নতি বঞ্চিত প্রভাষকদের ১০ বছর পূর্তিতে ৮ম গ্রেড তথা মাত্র এক হাজার টাকা বৃদ্ধির যে নিযম করা হয়েছে, জাতি গড়ার কারিগরদের এর দ্বারা চরমভাবে অপমান করা হয়েছে। তিনি বলেন, যে গ্রেড প্রভাষকরা ২ বছরে পেতেন সেই গ্রেড ১০ বছর পর কেন? তিনি অবিলম্বে এ বিধান বাতিলের দাবি জানান।

 

বদলি আন্দোলনের সমন্বয়ক রবিউল ইসলাম বলেন, বদলি না থাকায় নিজ জেলার বাইরে চাকুরিরত শিক্ষক কর্মচারীরা মানবেতর জীবনযাপন করছে।  তিনি বদলির বিষয়ে সুনির্দিষ্ট নীতিমালা প্রনয়ন করে অবিলম্বে তা বাস্তবায়নের দাবি জানান।


Categories