এমপিও কমিটির সভা ২০ জুলাই

প্রকাশিত: ৪:৫৬ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৮, ২০২০

মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের আওতাধীন বেসরকারি স্কুল ও কলেজের শিক্ষক-কর্মচারিদের ২০২০ সালের জুলাই মাসের বেতন ভাতাদির সরকারি অংশ এমপিও প্রদান সংক্রান্ত কমিটির সভা আগামী ২০ জুলাই সোমবার অনুষ্টিত হবে। করোনা প্রদূর্ভাবের কারণে এই সভাটি ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হবে। মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক সৈয়দ মো. গোলাম ফারুক সভায় সভাপতিত্ব করবেন। ১৬ জুলাই মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক মোহাম্মদ বেলাল হোসাইন স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তি মারফত এসব তথ্য জানা যায়। উক্ত সভার ২ নং আলোচ্যসূচিতে সহকারি শিক্ষকদের বহুল প্রত্যাশিত টাইম স্কেল এবং ৪ নং আলোচ্যসূচিতে প্রতিষ্ঠান প্রধান, উপাধ্যক্ষ এবং সহ-প্রধান শিক্ষকদের অভিজ্ঞতার জন্য উচ্চতর স্কেল প্রদানের বিষয়টি অন্তর্ভূক্ত রয়েছে। এসব বিষয়ে বাংলাদেশ বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারী ফোরামের কেন্দ্রীয় সভাপতি মো. সাইদুল হাসান সেলিম এর সাথে আলাপকালে তিনি জানান, ২০১৫ সালের পূর্বে এমপিওভূক্ত শিক্ষকরা ৮ বছর অভিজ্ঞতার জন্য একটি এবং পরবর্তী ৮ বছরের জন্য একটি মোট দু’টি টাইমস্কেল পেতেন। কিন্তু ২০১৫ সালে নতুন বেতন স্কেল প্রবর্তনের পর কোন কারণ উল্লেখ না করেই শিক্ষকদের টাইম স্কেল স্থগিত করে দেয় শিক্ষামন্ত্রণালয়। এর ফলে বিগত প্রায় পাঁচ বছরে অর্ধলক্ষাধিক শিক্ষক টাইমস্কেল প্রাপ্তি থেকে বঞ্চিত হয়েছেন। তিনি বলেন, এছাড়াও ২০১৫ নতুন বেতন কাঠামোর পর থেকে সরকারি ও বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রধানদের প্রাপ্ত গ্রেডেও বৈষম্য সৃষ্টি করা হয়েছে। সরকারি প্রতিষ্ঠানের প্রধানরা ৬ষ্ঠ গ্রেডের অন্তর্ভূক্ত হলেও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান প্রধানগণ পাচ্ছেন ৭ম গ্রেড। সহকারি শিক্ষকদের টাইম স্কেল এবং প্রতিষ্ঠান প্রধান ও সহ প্রধানদের অভিজ্ঞতার জন্য উচ্চতর স্কেল প্রদানের ন্যায়সংগত দাবি শিক্ষকদের দীর্ঘদিনের। শিক্ষক কর্মচারী ফোরামের সভাপতির সাথে আলাপকালে আরও জানা যায়, এমপিওভুক্ত প্রভাষকদের বৈষম্য মূলক অনুপাত প্রথা বাতিল করা জরুরি। প্রভাষকদের পূর্বের নিয়মে দুই বছরের অভিজ্ঞতায় ৮ম গ্রেড এবং ৮ বছরের অভিজ্ঞতায় ৭ম গ্রেডে উন্নিত করা প্রয়োজন। তারজন্য তারা বিভিন্ন সময়ে স্বারকলিপি, মানববন্ধন ও সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছেন। এছাড়াও তিনি বলেন, ২০১৮ নীতিমালায় বেসরকারি শিক্ষকদের জন্য বদলীর নীতিমালা প্রণয়ন করা হয়েছে। তদানুযায়ী অতিসত্বর বদলীর নীতিমালা বাস্তবায়ন করার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। তিনি বলেন, আমরা বিশ্বাস করি আমাদের অভিভাবক শ্রদ্ধেয় মহাপরিচালক মহোদয় আগামী ২০ জুলাই ২০২০ তারিখের সভায় অগ্রাধিকার ভিত্তিতে বঞ্চিত শিক্ষকদের দীর্ঘদিনের এসব যৌক্তিক দাবিগুলো আন্তরিকতার সাথে বাস্তবায়ন করবেন