“ঊনচল্লিশ (৩৯) দিন পর দ্বিতীয় সন্তানের জন্ম!”

প্রকাশিত: ১:২১ অপরাহ্ণ, জুলাই ২, ২০২০

রীতা আক্তার  স্বামী আমিনুল ইসলাম গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলার বর্মী এলাকার নয়ানগর গ্রামের বাসিন্দা। সাড়ে তিন বছরের দাম্পত্য জীবনে কোনো সন্তান না আসায় ময়মনসিংহের ডা. শিলা সেনের দারস্থ হন। তার চিকিৎসা ও পরামর্শ গ্রহণ করেন।

অতঃপর এক পর্যায়ে গর্ভবতী হন রীতা আক্তার। পরবর্তীতে আলট্রাসনোগ্রাম করার পর তার গর্ভে দুই সন্তানের অস্তিত্ব ধরা পড়ে। গত ১৩ মে হঠাৎ করে রীতার প্রসব ব্যথা শুরু হয়। তাৎক্ষণিকভাবে ডাক্তারের সঙ্গে যোগাযোগ করলে ডাক্তার শিলা সেন তাকে চেম্বারে আসতে বলেন ।

চেম্বারে যাওয়ার পর রীতাকে ময়মনসিংহের শিলাঙ্গন হাসপাতালে ভর্তি করে লেবার ওটিতে পাঠানো হয়। সেখানে ওইদিনই একটি কন্যা সন্তান প্রসব করেন এই গৃহবধূ। তবে দ্বিতীয় সন্তান গর্ভেই থেকে যায়।

এরপর গত ২৩ জুন ময়মনসিংহের চূরখাইয়ে অবস্থিত কমিউনিটি বেজড মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে দ্বিতীয় সন্তান প্রসব করেন রীতা।

পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তে নিয়মিতই ঘটছে নানা রকম ঘটনা। সম্প্রতি তেমনি একটি বিরল ঘটনা ঘটেছে ময়মনসিংহে। একটি কন্যা সন্তান জন্ম দেয়ার ৩৯ দিন পর এক মা ফের পুত্র সন্তানের জন্ম দিয়েছেন বলে জানা গেছে। মা এবং সন্তান তিনজনই বর্তমানে সুস্থ আছেন বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

৩৯ দিনের ব্যবধানে দুই সন্তানের জন্ম দেয়ায় হাসপাতালসহ আশপাশের এলাকায় ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে।

আল্লাহর কাছে শুকরিয়া আদায় করে এই মা রীতা আক্তার বলেন, এক কন্যা সন্তান জন্মের ৩৯ দিন পর ছেলে সন্তানের জন্ম দিতে পারায় মা হিসেবে আমি গর্বিত। আল্লাহর কাছে অনেক অনেক শুকরিয়া।

রীতা আক্তারের  চিকিৎসক ডা. শিলা সেন বলেন, সাধারণত কয়েক মিনিট বা এক-দুই ঘণ্টার ব্যবধানে যমজ বাচ্চার প্রসব হয়ে থাকে। কিন্তু ৩৯ দিন ব্যবধানে যমজ বাচ্চা প্রসব হওয়া একটি বিরল ঘটনা। দম্পতি এবং সন্তানদের জন্য আশীর্বাদ রইল।

রীতা আক্তার ও তার স্বামী তাদের সন্তানদের জন্য সকলের কাছে দোয়াপ্রার্থী।


Categories