ইউপি নির্বাচনে অনিয়ম ও কারচুপির অভিযোগ পত্নীতলার শিহাড়া ইউনিয়নের আমন্ত ভোট কেন্দ্রে মৃত ব্যক্তিদের ভোট গ্রহন

প্রকাশিত: ২:০৫ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৭, ২০২২

বাবুল আক্তার, স্টাফ রিপোর্টার: নওগাঁর পত্নীতলা উপজেলার শিহাড়া ইউনিয়নের ৭ নং ওয়াডের্র আমন্ত সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট গ্রহনে ব্যাপক অনিয়ম ও কারচুপির অভিযোগ উঠেছে।
এলাকাবাসীর অভিযোগ সূত্রে জানাগেছে, শিহাড়া ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের আমন্ত সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের ভোটার তালিকা অনুযায়ি বর্তমান ভোটার সংখ্যা ১৩১৮।

গত ৫ই জানুয়ারী ৫ম ধাপে অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনে ওই এলাকার প্রায় ৪০ জন মৃত ব্যক্তি সহ অনুপস্থিত থাকা প্রায় ৩ শতাধীক ব্যক্তির ভোট গ্রহণ দেখানো হয়েছে। প্রদত্ত ফলাফল তালিকা অনুযায়ি ওই কেন্দ্রে শতভাগ ভোট গ্রহণ হয়েছে বলে দায়িত্ব প্রাপ্ত প্রিজাইডিং অফিসার স্বাক্ষরিত ফলাফলে দেখা যায়।
ওই দিন ভোট গ্রহণ শেষে প্রিজাইডিং অফিসার স্বাক্ষরিত ইউপি সদস্য পদের উল্লেখিত ফলাফল সীটে মোট ভোটার সংখ্যা ১৩১৮ টির মধ্যে মোরগ মার্কায় -৭০৩ টি, টিবওয়েল ১টি, ফুটবল মার্কায়- ৫৯৩ টি,ও বাতিল ভোট- ২১ টি সহ মোট ১৩১৮ টি ভোটই কাস্ট দেখানো হয়েছে।

এলাকাবাসী অভিযোগ করেন ভোট কেন্দ্রে দায়িত্বে নিয়োজিত জৈনক সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার ভোট দিতে আসা অনেক ভোটারকে বেলট নাই বলে ভোট দিতে না দিয়ে ফিরিয়ে দিয়েছেন। আমন্ত উত্তর পাড়ার মহিলা ভোটার আবেদা বেগম জানান তিনি ভোট দেয়ার জন্য গেলে তাকে জানিয়ে দেয়া হয় তার ভোট দেয়া হয়ে গেছে।

একই গ্রামের সোবাহান আলী বলেন তার ছেলে চলচিত্র অভিনেতা এমরান হাসো ঢাকায় এফডিসিতে কর্মরত আছেন। পরিবারের আরও কয়েকজন ঢাকায় রয়েছে তারা ভোট দিতে না আসলেও তাদের ভোট দেয়া হয়ে গেছে। শিহাড়া ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের (ফুটবল মার্কা) সদস্য পদ প্রার্থী মোঃ গোলাম রব্বানী অভিযোগ করেন ওই কেন্দ্রে শত ভাগ ভোটার উপস্থিতি দেখিয়ে প্রতিদন্ধি প্রার্থী মোশারফ হোসেন দিলিপ (মোরগ মার্কা) কে কারচুপির মাধ্যমে বিজয়ী ঘোষনা করা হয়েছে।

তিনি উক্ত ঘটনার সঠিত তদন্ত সহ ৭নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য পদের ফলাফল প্রত্যাহার করে পুনরায় ভোট গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট নির্বাচন কমিশনের নিকট জোর দাবী জানান। এলাকাবাসী আরো অভিযোগ করেন যে ৭ নং ওয়ার্ডের আমন্ত উত্তরপাড়া, মধ্যপাড়া, দক্ষিনপাড়া, বাউস্তাপাড়া, হিন্দুপাড়া ও পরানপুর গ্রামের প্রায় দুই শতাধীকেরও বেশী লোকজন দেশ ও বিদেশে কর্মরত রয়েছেন। ভোটের দিন ওই ভোটারগণ অনুপস্থিত থাকা সত্বেও রহস্যজনক ভাবে তাদের ভোট গ্রহণ দেখানো হয়েছে। লাইনে দাড়ানো প্রায় শতাধীক ভোটার ভোট দিতে না পেরে ফিরে গেছেন। ওই ওয়ার্ডের অধিকার বঞ্চিত বিপুল সংখ্যক নারী পুরুষ পুণ: ভোট গ্রহণের জোর দাবি জানান। এই ঘটনায় ওই ৭নং ওয়ার্ড আমন্ত এলাকায় টানটান উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোন মহুর্তে সেখানে বড় ধরনের দূর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে বলেও এলাকার অভিজ্ঞ মহল মনে করছেন।

এ বিষয়ে ১১ নং শিহাড়া ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ড আমন্ত সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভোট কেন্দ্রে দায়িত্বে নিয়োজিত থাকা প্রিজাইডিং অফিসার নজিপুর মহিলা ডিগ্রী কলেজের প্রভাষক মো. শামীম ইমতিয়াজ এর সাথে মোবাইলে কথা হলে তিনি এ সকল অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন ভোট কেন্দ্রে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটানোর চেষ্টা হচ্ছিল। সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার হ্যান্ড সীট তৈরীর সময় ভুল হাতে পারে তা সংশোধন করে রিটানিং অফিসারের নিকট জমা দেয়া হয়েছে। আপনারা প্রয়োজনে উপজেলা প্রশাসন থেকে তা দেখে নিতে পারেন।


Categories