আজ সরকারী আজিজুল হক বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী

প্রকাশিত: ২:৪২ অপরাহ্ণ, জুলাই ১০, ২০২০

 নূরুল ইসলাম, বগুড়া :

উত্তর জনপদের শ্রেষ্ঠ বিদ্যাপীঠ বগুড়া শহরের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত সরকারি আজিজুল হক বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ।১৯৩৯ সালের জুলাই মাসের আজকের এই দিনে কলেজটি যাত্রা শুরু করে। ১৯৩৮ সালের ৪ এপ্রিল বগুড়ায় একটি কলেজ প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে খাঁন বাহাদুর মোহাম্মদ আলীকে সভাপতি এবং মৌলভী আব্দুস সাত্তারকে সাধারণ সম্পাদক করে একটি কমিটি গঠন করেন। অবিভক্ত বঙ্গে বিশিষ্ট ব্যক্তিত্ব স্যার আজিজুল হক এর নামে কলেজটির নামকরণ করেন। আজিজুল হক স্যার, সে সময় কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ছিলেন।তিনি সরকারী স্কুলে শিক্ষার মাধ্যমে ইংরেজি থেকে বাংলা চালু, প্রাথমিক শিক্ষা পরিকল্পনাকে অ্যাক্টে পরিণত, কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগ প্রতিষ্ঠা, শিক্ষা সপ্তাহ পালন কর্মসূচি প্রবর্তন, বঙ্গীয় ব্যবস্থাপক সভার মহাজনী বিল ও প্রজাস্বত্ব আইন উপস্থাপন তার উল্লেখযোগ্য কীর্তি। এ কলেজের প্রথম অধ্যক্ষ ছিলেন ড. এম. এম. মুখার্জি এবং প্রথম উপাধ্যক্ষ ছিলেন শ্রী এস.পি সেন। কলেজটি যাত্রার প্রথম পর্যায়ে অস্থায়ীভাবে সুবিল প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ২ বছর এবং পরবর্তীতে এটি ফুলবাড়ী বটতলাতে স্থানান্তরিত করা হয়। ১৯৬৮ সালের ১৫ এপ্রিল তৎকালীন সরকার কলেজটি সরকারীকরনের আওতায় নিয়ে আসেন। প্রথম ব্যাচে আই এ শ্রেণীর ২০০ জন ছাত্র নিয়ে যাত্রা করা এ কলেজ বাংলাদেশের উত্তর অঞ্চলের বৃহত্তম শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। বিজ্ঞান অনুষদ, কলা অনুষদ, সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ, ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদে অনার্স ও মাস্টার্স ফোর্সে প্রায় ৪০ হাজার ছাত্র -ছাত্রী অধ্যয়ন রত। এ কলেজে আজও দু’টি ভবন বিদ্যমান আছে। ফুলবাড়ি পুরাতন ভবনে উচ্চ মাধ্যমিক ও নতুন ভবনে ডিগ্রী, অনার্স ও মাস্টার্স এর ক্লাস অনুষ্ঠিত হয়। উত্তরবঙ্গের সর্ববৃহৎ এ প্রতিষ্ঠান শিক্ষা-সাহিত্য সংস্কৃতির আঁতুড়ঘর হিসেবে পরিচিত। ন্যায়সঙ্গত অধিকার প্রতিষ্ঠার সমস্ত আন্দোলন- সংগ্রামের সূতিকাগার এ প্রতিষ্ঠানটি আজও মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে আছে। কৈশোর, যৌবনের অসংখ্য স্মৃতি বিজড়িত এই মহান শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ও সাবেক ছাত্র- ছাত্রী আনন্দিত ও গর্বিত।