অতিরিক্ত দামে পণ্য বিক্রির দায়ে চট্রগ্রামে ১২ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা।

প্রকাশিত: ১:৫৪ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৫, ২০২০
এম. ইউছুফ |  চট্টগ্রাম
চট্টগ্রাম নগরীর তদার‌কিমূলক অভিযান চালিয়ে ১২ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা করলো জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর।
মঙ্গলবার ১৪ জুলাই অধিদপ্তরের বিভাগীয় কার্যালয়ের উপ-প‌রিচালক ‌মোহাম্মদ ফ‌য়েজ উল‌্যাহ, সহকারী প‌রিচালক নাস‌রিন আক্তার, সহকারী প‌রিচালক (‌মে‌ট্রো) পাপীয়া সুলতানা লীজা ও জেলা কার্যাল‌য়ের সহকারী প‌রিচালক মুহাম্মদ হাসানুজ্জামানের নেতৃত্বে এই অভিযান পরিচালিত হয়।
চট্টগ্রাম নগরীর বা‌য়ে‌জিদ, চান্দগাঁও, কোতোয়ালী, হা‌লিশহর ও চকবাজার থানা এলাকায় ১২ প্রতিষ্ঠানকে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন, ২০০৯ এর বি‌ভিন্ন ধারায় ৫৮ হাজার জরিমানা করা হয়। একইসাথে অননু‌মো‌দিত রং, ফ্লেভার, নকল চে‌রি, মেয়াদোত্তীর্ণ জন্মদিনের কেক, মেয়াদোত্তীর্ণ কোমল পানীয়, মেয়াদবিহীন ও অননুমোদিত ওষুধ ধ্বংস করা হয়।
মুহাম্মদ হাসানুজ্জামান জানান, চট্টগ্রাম নগরীর মধ‌্যম মোহরার ওয়াসা নদীর পাড় এলাকার সুলতান স্টোর‌ ৫ টাকা বেশি দামে ‘সেপনিল’ বিক্রি করার অভিযোগে ৩ হাজার টাকা, কুয়াইশ বাজা‌রের মেজবান সুইটস‌কে মেয়াদোত্তীর্ণ কোমল পানীয় ও জন্মদিনের কেক রাখায় ৬ হাজার টাকা, বু‌ড়িশ্চর এলাকার বাটারবল বেকা‌রি‌কে অননু‌মো‌দিত ফ্লেভার, রং এবং নকল চে‌রি রাখায় ১৫ হাজার টাকা, প‌শ্চিম মোহরা এলাকার শান্তি ফা‌র্মেসি‌কে অ‌নিব‌ন্ধিত বি‌দে‌শি ওষুধ ও সরকা‌রি ওষুধ বিক্রির জন‌্য সংরক্ষণ করায় ১০ হাজার টাকা, একই এলাকার রাউজান ফা‌র্মেসি‌কে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ সংরক্ষণ করায় ১ হাজার টাকা, মা-বাবার দোয়া স্টোর‌কে মেয়াদোত্তীর্ণ কোমল পানীয় রাখায় ৪ হাজার টাকা, মুনতাহা স্টোর‌কে মূল‌্য তা‌লিকা না রাখায় ২ হাজার টাকা, জামালখান এলাকার আনন্দ বাজারকে মেয়াদোত্তীর্ণ কোমল পানীয় সংরক্ষণ করায় ৩ হাজার টাকা, একই এলাকার সেবা নিকেতনকে বেশি দামে হেক্সিসল বিক্রয় করায় ৩ হাজার টাকা, বড়পুল এলাকার জাবেদ স্টোরকে মূল্য ঘষামাজা করে স্যাভলন বিক্রি করায় ৬ হাজার টাকা, চমেক পূর্ব গেট এলাকার সজীব মেডিকেল হলকে মেয়াদবিহীন কাটা ওষুধ বিক্রির জন্য সংরক্ষণ করায় ৩ হাজার টাক, হিরা ফার্মেসিকে একই অপরা‌ধে ২ হাজার টাকা জরিমানাসহ সতর্ক করা হয়।

Categories